All for Joomla The Word of Web Design
প্রবাস জীবন

আবেগী মনের ঈদ ভাবনা

 খান মুফতি মাহমুদ
মাই নিউজ, ‘ফ্রান্স প্রতিনিধি’।

প্রবাস জীবন বেছে নেওয়ার পর আজ অবধি ‘৩১ টা’ ঈদ অতিবাহিত হয়েছে। এর মধ্যে মাত্র ‘তিন’টা ঈদ মায়ের সাথে অর্থাৎ পরিবারের সদস্যদের সাথে করার সৌভাগ্য হয়েছে। মনে পড়ে সেইদিনকার কথা, যেইদিন জীবনের প্রথম কোনো ঈদের দিনে মায়ের কাছ থেকে বহু… বহুদূরে ছিলাম। একা একা অনেক কেঁদেছিলাম। উপস্থিত কাউকে বুঝতে না দিলেও, দূর… বহুদূরে থেকেও গর্ভধারিণী মা আমার সন্তানের মানসিক অবস্থা ঠিকই টের পেয়েছিলেন। ফোনে কথা বলার সময় মা আমার আঝোরে কেঁদেছিলেন। আমিও নিজেকে সংযত রাখতে পারিনি।

সময়কাল ছিল ২০০২ খ্রিষ্টাব্দ। যুগ পার হয়েছে। নিজের সংসার-সন্তান হয়েছে। প্রবাস জীবনের জটিল বাস্তবতায়, ব্যস্ততায়, সন্তানদের চঞ্চলতায়, হাসি আনন্দে দিন অতিবাহিত হয় আমার।  সন্তানের প্রতি মা-বাবার মনের ভেতরকার গভীর মমতা, আবেগ, ভালোবাসা কতোটা নিবিড়– তা মা-বাবা ছাড়া আর কারো বুঝার ক্ষমতা মহান স্রষ্টা আল্লাহ তায়ালা কাউকেই দেননি। তাই সন্তানের বাবা হওয়ার পূর্বে এর মর্ম বিন্দুমাত্র উপলব্ধি করতে পারিনি। ছোটবেলায় মায়ের শাসনগুলো অনেক কষ্টের মনে হলেও, এখন তার প্রয়োজনীয়তা হারে হারে বুঝি। কঠোর শাসনের পরক্ষণেই মায়ের মন খারাপ ও চুপিসারে কান্নার যথার্থতা এখন অনুধাবন করতে পারি। এখানে বলে রাখা দরকার, আমি খুব ছোট থাকতেই আমার জন্মদাতা বাবা এই পৃথিবীর মোহ ত্যাগ করে পরপারের বাসিন্দা হয়েছেন। তাই আমার স্মৃতির পাতাগুলো বাবার মমতাময় স্মৃতি থেকে শূন্য। বাবার সাথে কোনো ঈদ উদযাপনের সৌভাগ্যময় স্মৃতি  থাকলেও, এখন তা মনে পড়ে না। শুধু স্মৃতির পাতায় তন্য তন্য করে খুঁজি– বাবাকে নিয়ে ঈদ অথবা যেকোনো আনন্দ-বেদনার মুহূর্তগুলো। বাবার উপস্থিতি-অনুপস্থিতির ফলাফল দেখি। জন্মদাতা বাবার কাছে আবদার, প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসেব কষি। আবেগী মন সিক্ত হয়। অবারিত নোনাজলে কপোল ভিজে যায় নিজের অজান্তেই। গর্ভধারিনী মায়ের কাছে আমাদের নিয়ে শ্রদ্ধেয় বাবার ভাবনা ও পরিকল্পনার গল্প শুনে, স্মৃতি রোমন্থন করা ছাড়া আমার কোনো উপায় থাকে না। নামাজান্তে দু’হাত তুলে আল্লাহর কাছে দোয়া করি, “রাব্বির হামহুমা কামা রাব্বা ইয়ানি ছাগিরা।”

আমরা সন্তানেরা বুঝে/না বুঝে মা-কে হাজারো কষ্ট দিয়ে থাকি। কিন্তু মা সন্তানের অমঙ্গলের কথা ভাবতেই পারেন না। প্রবাসে থাকি বলে আবেগটা হয়ত একটু বেশি। আমার সন্তানরা যখন আমার কাছ থেকে দূরে যায়, পরিবারের সদস্যদের সাথে ঈদ উদযাপন করে, আমি একা হয়ে পড়ি। চারদিকে শূন্যতা অনুভব করি। তাদের নিয়ে ভালো-মন্দ ভাবনায় অকুল সাগরে হাবুডুবু খাই। পরক্ষণেই ভাবি– এটাই হয়ত সন্তানের প্রতি মা-বাবার গভীর মায়া-মমতা, নিখাদ ও স্বার্থহীন ভালোবাসা।

খুউব মনে পড়ে, ছোটবেলার ঈদ আয়োজনের কথা। বাবার অনুপস্থিতিতে বড়ভাইয়ের কাছ থেকে ঈদের নতুন জামা পাওয়ার জন্য ঈদের চাঁদ রাত পর্যন্ত অপেক্ষা করা। ঈদের দিন কাকডাকা ভোরে ফজরের নামাজান্তে রান্নার কাজে মায়ের ব্যস্ত হয়ে যাওয়া। দলবেঁধে ঈদগাহের উদ্দেশ্যে নতুন পোশাকে ঈদের নামাজ আদায় করা। নামাজ সেরে বাড়ি ফিরে মা-সহ মুরুব্বিদের পা ছুঁয়ে ছালামের বিনিময়ে ছালামি আদায়ের নানাবিধ প্রচেষ্টা করা। এর থেকে নিস্তার পেত না প্রতিবেশিরাও! তবে সকলেই এটাতে আনন্দ উপভোগ করত। অপরদিকে কুরবানির ঈদে পশু ক্রয় থেকে পশু জবাই, সুবিধাবঞ্চিত ও আত্মীয়দের মাঝে কুরবানির গোশত বিতরণ করা, রমজানের কিংবা কুরবানির ঈদগুলো যেন ছিল আনন্দের স্রোতধারা!

এখন অনেক কিছুই হারিয়ে গেছে। প্রয়োজনের তাগিদে, কালের আবর্তে। আধুনিকার উৎকর্ষতায় আমাদের মানুসিকতার পরিবর্তন ঘটছে সীমাহীন। ইচ্ছায় অথবা অনিচ্ছায়। তবে ভালো কী মন্দ– আলোচনাযোগ্য।

প্রিয় মা আমার বয়সের ভারে অনেকটাই ন্যুব্জ। ভাইদের সংসার-সন্তান নিয়ে ব্যস্ততা বেড়েছে। আর আমি তো বহুদূরে। তবুও বেপরোয়া মন স্মৃতির পাতায় হানা দিতে থাকে ঈদের দিনগুলোতে। প্রবাস এবং দেশী ঈদের আনন্দ-মুহূর্তের পার্থক্য খুঁজে। আবেগী মন কেঁপে ওঠে। স্মৃতির জানালায় কড়া নাড়ে। মা, ভাইবোন, ভাতিজা-ভাতিজি, ভাগিনা-ভাগিনী ও নিকটাত্মীয়-বন্ধুদের শূন্যতায়।

তবুও দিন কেটে যায় মহান আল্লাহর নির্দেশমতো। কথায় বলে, সময় এবং স্রোত কারো জন্য অপেক্ষা করে না। তাই আমরাও থেমে থাকি না। দৌড়াতে থাকি পাগলা ঘোড়ার মতো। প্রবাস জীবনে খ্রিস্টান অধ্যুষিত দেশে জীবন-জীবিকা নামক বলগা ঘোড়ার/মরীচিকার পিছনে ছুটে বেড়ানোর পরও ঈদের জামাতে শরিক হওয়াকে পরম পাওয়া মনে করি। আনন্দ-বেদনা, সুখ-দুঃখ বরণ করে নিই হাসি-কান্নায়। ভরসা রাখি পরম করুনাময়, দু’জাহানের মালিক, রাব্বুল আলামিন আল্লাহর ওপর।…

*লেখকের ই-মেইল:
muftymk@yahoo.fr

মাই নিউজ/মাহদী

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

শিরোনাম:
  ❖   “সত্য আমায় ব্যাকুল করেছে”- উম্মে হাবীবা   ❖   ইভটিজিং প্রতিরোধে ইসলামী অনুশাসন   ❖   ‘ভোট ডাকাতির চেষ্টা হলে কঠিন মাশুল গুণতে হবে’   ❖   হাই কোর্টে বিএনপির আরও তিন প্রার্থী ধরা খেলেন   ❖   আমেরিকার হাত ইয়েমেনের জনগণের রক্তে রঞ্জিত: নিউ ইয়র্ক টাইমস   ❖   তাপসের মিছিলে ঢলে পড়লেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল   ❖   ১০০ বছর ধরে গির্জা রক্ষণাবেক্ষণ করছে এক মুসলিম পরিবার   ❖   কোন ষড়যন্ত্রেই বাংলাদেশের উন্নয়নের চাকা থামবে না : সমাজকল্যাণমন্ত্রী   ❖   বিএনপির রাজনীতি চলে গেছে জিয়া পরিবারের বাইরে   ❖   নির্বাচন কমিশন কোনো দলের কথায় কাজ করবে না : সিইসি