All for Joomla The Word of Web Design
ইদানিং ভাবনা

সামান্য অসতর্কতাই আমাদেরকে কুরবানীর সওয়াব থেকে বঞ্চিত করতে পারে ।

মাওঃ ইবরাহীম খলীল কাসেমী, উস্ততাদ : জামেয়া মুহাম্মাদিয়া বিক্রমপুর , নিমতলা , মুন্সিগঞ্জ ।
সামনে কুরবানীর ঈদ ,সবাই ঈদের আনন্দ নিয়ে ব্যস্ত ,রোজার ঈদের ন্যায় এ ঈদে নতুন জামা কাপড়ের তেমন আনন্দ থাকে না । তাইতো অনেকেই রোজার ঈদের কাপড় দিয়েই কুরবানীর ঈদ কাটিয়ে দেয়।
এ ঈদের আনন্দ হলো পশু কুরবানীর মধ্যে ,আর সে জন্যে সবাই কুরবানীর পশু কেনার জন্য হাটে ভীর জমাচ্ছে। কেউ কেউ আবার এ ভীরের ঝামেলা থেকে মানুষকে বাঁচানোর জন্য অনলাইনে পশুর হাট দিয়েছে ,আর ঘোষণা করছে হাটে না হেঁটে গরু কিনুন নেটে ।
তা যাই হোক, আপনি হেঁটে গরু কিনবেন না নেটে কিনবেন তা আপনার একান্ত ব্যাপার , তবে একটা বিষয় লক্ষ্য রাখতে হবে ,সেটা হলো আল্লাহ তায়ালা বানী ,( এগুলোর গোশত ও রক্ত কিছুই আল্লাহর কাছে পৌঁছে না , কিন্তু পৌঁছে শুধু তাঁর কাছে তোমাদের তাকওয়া। সূরা আল হাজ্জ; ৩৫ )
তাই গরু কেনা থেকে নিয়ে কুরবানী পর্যন্ত আমাদের এমন ভাবে কাজ করতে হবে, যাতে আমাদের তাকওয়ার পরিপন্থী কোন কিছু প্রকাশ না পায়। এমন যেন না হয় যে, হাজার হাজার টাকা খরচ করে দিলাম , অথচ সওয়াব কিছুই হলো না। শুনে হয়তো অবাক লাগছে যে ,সওয়াব কেন হবে না? আগেই বলেছি আল্লাহ তায়ালা আমাদের মধ্যে কে কত দামী, বা কে কত বড় পশু জবাই দিলো তার দিকে লক্ষ্য করেন না , বরং তিনি লক্ষ্য করেন আমাদের অন্তরের দিকে ‌। কার অন্তরে কি আছে আর কে কোন নিয়তে কুরবানী করছে তা তিনি ভালো করেই জানেন। আর সওয়াব একমাত্র নিয়তের উপরেই নির্ভর করে দেওয়া হয় । তাই আমাদের কুরবানী যদি লোক দেখানো বা শুধু গোশত খাওয়ার উদ্যেশ্যেই হয়ে থাকে, তাহলে আমাদের সওয়াব বিন্দু মাত্রও হবে না, সওয়াব তো দুরের কথা তার কুরবানীই সহিহ হবেনা। এমনকি যদি কয়েকজন মিলে কুরবানী করে আর তার মধ্যে একজনের উদ্যেশ্য গোশত খাওয়া বা লোক দেখানো হয় , তাহলে কারোরই কুরবানী জায়েয হবে না।
বর্তমান সবচেয়ে দ্রুততম গণমাধ্যম হলো ফেসবুক ,গরু কেনার পর আপনি ভাবলেন একটা ফটো ফেসবুকে না দিলে কেমন হয় ? তাই ফুট করে ছবি তুলে ছেড়ে দিলেন ফেসবুকে , যাতে করে সবাই জানতে পারে আপনিও কুরবানী দিচ্ছেন , এবং আপনার গরুর দামটাও এত । তো এর দ্বারা কি মানুষ দেখানো উদ্যেশ্য নয় ? কী দরকার আছে আপনার কুরবানীর পশুর ছবি ফেসবুকে ছাড়ার ? শুধু মাত্র লোক দেখানোই উদ্যেশ্য , আর কিছু নয় ।
তো ব্যস, আপনার কুরবানী না হওয়ার জন্য এতটুকুই যথেষ্ট ,এত টাকা পয়সা খরচ করার পরও আপনার সওয়াবের কোটা খালি ।
তাই আমাদের লক্ষ্য রাখা দরকার যে, এই সামান্য অসতর্কতা আমাদের কুরবানীর মতো গুরুত্বপূর্ণ ইবাদতকে নষ্ট করে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট।
তাই আসুন আমরা একমাত্র আল্লাহর রাজি সন্তুষ্টির জন্যই কুরবানী করি , লোক দেখানো বা গোশত খাওয়ার উদ্যেশ্যে না করি । আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে সঠিক পদ্ধতিতে কুরবানী ও অন্যান্য ইবাদত করার তৌফিক দান করুক। আমিন।

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

শিরোনাম:
  ❖   “সত্য আমায় ব্যাকুল করেছে”- উম্মে হাবীবা   ❖   ইভটিজিং প্রতিরোধে ইসলামী অনুশাসন   ❖   ‘ভোট ডাকাতির চেষ্টা হলে কঠিন মাশুল গুণতে হবে’   ❖   হাই কোর্টে বিএনপির আরও তিন প্রার্থী ধরা খেলেন   ❖   আমেরিকার হাত ইয়েমেনের জনগণের রক্তে রঞ্জিত: নিউ ইয়র্ক টাইমস   ❖   তাপসের মিছিলে ঢলে পড়লেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল   ❖   ১০০ বছর ধরে গির্জা রক্ষণাবেক্ষণ করছে এক মুসলিম পরিবার   ❖   কোন ষড়যন্ত্রেই বাংলাদেশের উন্নয়নের চাকা থামবে না : সমাজকল্যাণমন্ত্রী   ❖   বিএনপির রাজনীতি চলে গেছে জিয়া পরিবারের বাইরে   ❖   নির্বাচন কমিশন কোনো দলের কথায় কাজ করবে না : সিইসি