All for Joomla The Word of Web Design
৬৪ জেলা

মানব পাচারকারীর প্রতারণায় সর্বশান্ত একাধিক পরিবার

‘ভাই আমাকে বাঁচান আমি মারা যাব’

অনলাইন ডেস্ক
মানব পাচারকারীর প্রতারণার শিকার হয়ে কয়েকটি পরিবার সর্বশান্ত হয়েছে। ভিটেমাটি বিক্রি করে এখন তারা নিঃস্ব। এনজিও’র টাকা পরিশোধ করতে না পেরে পালিয়ে বেড়াচ্ছে ভুক্তভোগী পরিবারগুলো। এদিকে সৌদি আরব থেকে প্রতিদিন স্বজনদের কাছে ফোনে তাদের নির্মম পরিহাসের কথা জানাচ্ছেন প্রবাসীরা। বিদেশের বন্দিদশা থেকে বার বার পরিবারকে দুঃখ-দুর্দশার কথা বললেও মানব পাচারকারীদের প্রতারণায় জিম্মি মাদারীপুরে কয়েকটি পরিবার।

ভূক্তভোগিদের সাথে কথা বলে জানা যায়, মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার ডাসার থানার বালিগ্রাম ইউনিয়নের পান্তাপাড়া গ্রামের মালেক হাওলাদারের ৪ ছেলের মধ্যে ২ ছেলে হেমায়েত হাওলাদার ও এনায়েত হাওলাদার দীর্ঘদিন ধরে সৌদি প্রবাসী। সেই সুবাদে ভালো চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে প্রত্যেকের কাছ থেকে ৭ থেকে ৮ লাখ টাকার বিনিময়ে সৌদি নিয়ে কোনো সুনির্দিষ্ট কাজ দিতে পারেনি তারা। তাদের কাউকে কাজ না দিয়ে পুরো টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে বলে পরিবারের অভিযোগ। ফলে তারা সেখানে মানবেতর জীবনযাপন করছে। দেশে ফেরত আসতে চাইলেও আসতে দেয়া হচ্ছে না। পাসপোর্ট আটকে রাখা হয়েছে। অতিরিক্ত টাকা দাবি করে প্রায়ই মারধর করা হয়। অনাহারে-অর্ধাহারে এই ভুক্তভোগী লোকগুলোর জীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে বলে দাবি পরিবারের।

একাধিক পরিবারের অভিযোগে জানা গেছে, কালকিনির পান্তপাড়া গ্রামের মঞ্জু তালুকদারের ছেলে ইমন তালুকদার ও মেয়ে জামাই রিপন জমাদ্দার, ইস্রাফিল ও পূর্ব বোতলা গ্রামের মোকলেছ, সাহেবরামপুর গ্রামের হাবিব সরদারের ছেলে রবিউলসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের নিরীহ লোকজনের কাছ থেকে সৌদি প্রবাসী এনায়েতের স্ত্রী কলেজ পড়ুয়া নিপা আক্তার ও হেমায়েত হাওলাদারের স্ত্রী রিয়া আক্তার ও শ্বশুর খোকন বেপারির যোগ-সাজশে অর্ধকোটি টাকা নিয়ে সৌদি আরব বসবাস করছে আদম ব্যবসায়ী হেমায়েত ও এনায়েত হাওলাদার। এদের বিরুদ্ধে ডাসার থানায় বিদেশ পাচার ও হয়রানিমূলক একাধিক মামলা রয়েছে বলে ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগ।

ভুক্তভোগী রবিউল ইসলামের মা জানান, ‘রবিউলকে জিম্মি করে বাংলাদেশে তার কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছে আরও দেড় লাখ টাকা। হেমায়েতের শ্বশুর ও তার স্ত্রী রিয়ার হাতে রবিউলের মা তুলে দিয়েছেন ধারদেনা করে দেড় লাখ টাকা। আর সৌদি আরবে যাওয়ার সময় এনায়েতের স্ত্রী নিপার হাতে দিয়েছেন ৬ লাখ টাকা।’

টেলিফোনে রবিউল কান্নাজড়িত কণ্ঠে জানান, ‘ভাই আমাকে বাঁচান। আমি মারা যাব। হেমায়েত-এনায়েত আমাকে মাইরা ফালাইব। আমার পাসপোর্ট আটকে রেখেছে। কোনো কাজ দেয় না। আমার কাছে আরও ২ লাখ টাকা চায়। আমাকে বাঁচান ভাই।’

অনুসন্ধানে আরো জানা যায়, বরিশালের মুলাদি থানার আলাউদ্দিন হাওলাদারকেও একই রকম প্রলোভন দেখিয়ে সৌদি আরব নেয় হেমায়েত তার শ্বশুর খোকন বেপারির মাধ্যমে। বিনিময়ে তার স্ত্রী রিয়া ও শ্বশুর শরীয়তপুর জেলার গোসাইরহাট থানার নাগেরপাড়া ইউনিয়নের শিবপুর গ্রামের হায়দার আলী বেপারির ছেলে খোকন বেপারি ৫ লাখ ২০ হাজার টাকা নেয়। ফ্রি ভিসা দেয়ার কথা থাকলেও তাকে একটি নামসর্বস্ব, অস্তিত্বহীন প্রতিষ্ঠানের ভিসা দেয়া হয়। যে ভিসায় তিনি কোনো কাজ করতে পারেননি। দেশে ফিরে আসতে চাইলে তাকে অমানুষিক নির্যাতন করা হয়। অবশেষে মুমূর্ষু অবস্থায় হেমায়েতের খোয়াড় থেকে পাসপোর্ট নিয়ে কৌশলে পালিয়ে পুলিশের সহায়তায় বাংলাদেশে ফিরে আসেন তিনি। লোমহর্ষক মধ্যযুগীয় নির্যাতনের স্মৃতি এখনও তাড়া করে ফিরে আলাউদ্দিন হাওলাদারকে।

এব্যাপারে মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) সুমন দেব বলেন, ‘মানবপাচার অত্যন্ত গর্হিত অপরাধ। যারা এমন অপরাধের সাথে জড়িত তাদের বিরুদ্ধ জেলা পুশিল সব সময় সচেতন। যদি ডাসার থানায় এদের বিরুদ্ধে মামলা থাকে, তাহলে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কেউ ছাড় পাবে না।’

এব্যাপারে অভিযুক্ত হেমায়েত হাওলাদা ও এনায়েত হাওলাদারের কালকিনি উপজেলার পান্তপাড়া গ্রামে তাদের নিজ বাড়িতে গেলে পরিবারের কাউকে পাওয়া যায়নি। অভিযুক্তদের স্ত্রীরা অন্যত্র পরিবার-পরিজন নিয়ে থাকেন বলে জানা গেছে।

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

শিরোনাম:
  ❖   নবজাতক জন্ম—পরবর্তী করণীয় সম্পর্কিত ইসলামি নির্দেশনা   ❖   বাংলাদেশি বশির মালয়েশিয়ার মাহসা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিপি   ❖   ৫০ হাজার ধার দিয়ে লিখে নেন আড়াই কোটি টাকার চেক   ❖   একই পরিবারের ৩ জনের লাশ উদ্ধার বরিশালে   ❖   রুম্পার সারা শরীরের হাড় ভাঙ্গা   ❖   দেশের সব স্বাস্থ্যকেন্দ্রে বিনামূল্যে স্যানিটারি ন্যাপকিন দেবে সরকার   ❖   মানুষের মতো বাচ্চা জন্ম দিল ছাগল!   ❖   নারীদের গণপরিবহনে চলাচল: পুলিশের ৯ পরামর্শ   ❖   “কুরআন-সুন্নাহর আলোকে মাযহাব” বইয়ের মোড়ক উন্মোচন   ❖   বিএনপি যে ধরনের অস্থিরতা তৈরি করেছে, তা ক্ষমার অযোগ্য