All for Joomla The Word of Web Design
স্বাস্থ্য পরামর্শ

নরমাল ডেলিভারির জন্য টিপস

মাহদী হাসানাত খান
(সহযোগী সম্পাদক)


সাধারণত বেশিরভাগ দম্পত্তি ‘নরমাল ডেলিভারি’ প্রত্যাশা করেন। এমন প্রত্যাশা করাটাই স্বাভাবিক এবং সর্বোত্তম সিদ্ধান্ত। কেননা এটিই হলো স্বতঃসিদ্ধ প্রাকৃতিক নিয়ম। যা মহান আল্লাহর বিশেষ সাহায্যে আজও অবধি হয়ে আসছে। আর এই বিশেষ সাহায্যের কথা মহান আল্লাহ পবিত্র কোরআনেই বলেছেন। মহান আল্লাহ অভয় দিয়েছেন। এদিকে সিজারিয়ানের প্রতি অসাধুরা ভুক্তভোগীদের আগ্রহী করে করে অস্বাভাবিক হারে বাড়াচ্ছে মানব মৃত্যুর সংখ্যা। যা কারওই অজানা নয়। তো, নরমাল ডেলিভারির জন্য আমাদের বিশেষ কিছু করণীয় রয়েছে। তা ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে বলছি। আশা করি, উপকৃত হবেন। আসুন, জেনে নিই টিপসগুলো—

১। ইবাদত-বন্দেগি করুন :
কালামুল্লাহ শরিফ পাঠ, নামাজ-কালাম, দরুদ শরিফ পাঠ , ইবাদত বন্দেগি করুন।

২। বদ অভ্যাস থেকে বিরত থাকুন। সর্বদা গুনাহমুক্ত জীবনযাপন করুন। সবাইকে ক্ষমা করে দিন এবং সবার কাছ থেকে ক্ষমা চেয়ে নিন।

৩। ব্যায়ামের অভ্যাস গড়ে তুলুন :
যদি আপনার ব্যায়াম করার অভ্যাস না থাকে তাহলে গর্ভাবস্থায় শুরু করুন কোনো অজুহাত না দেখিয়ে। প্রসবের চাপ সহ্য করার জন্য শ্রোণি অঞ্চলের পেশী ও উরুর পেশীকে শক্তিশালী করার জন্য ব্যায়াম করুন। কীভাবে এই ব্যায়াম করতে হয়—তা জানতে আপনার চিকিৎসকের সাহায্য নিন।

৪। চিন্তামুক্ত থাকুন :
প্রসবের সময় স্ট্রেস অনুভব করলে অক্সিটোসিন হরমোনের উৎপাদন কমে যায়। এই হরমোনটি প্রসবের সময় সংকোচন ঘটায়। স্ট্রেসের মাত্রা বৃদ্ধি পেলে প্রসব দীর্ঘায়িত হয়। তাই স্ট্রেস মুক্ত থাকার চেষ্টা করুন।

৫। নরমাল ডেলিভারির অহেতুক ঘটনা শোনা এড়িয়ে চলুন :
অনেক নারীই হবু মায়েদের প্রসবের ঘটনা বলতে পছন্দ করেন। নেতিবাচক গল্প প্রসবের সময় নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। তাই এ ধরনের গালগল্প শোনা থেকে বিরত থাকুন।

৬। সঠিক খাবার খান :
পুষ্টিকর খাবার খাওয়া আপনাকে সুস্থ রাখতে ও শক্তিশালী করতে এবং শিশুর বৃদ্ধি ও গঠনের উন্নতিতে সাহায্য করে। একজন সুস্থ মায়ের স্বাভাবিক প্রসবের মাধ্যমে সন্তান জন্ম দেওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

৭। পানি ব্যবহার করুন :
পানি একমাত্র উপাদান যা আপনার লেবার পেইন কমাতে এবং নরমাল ডেলিভারি হতে সাহায্য করে। বাথটাবে উষ্ণ পানিতে বসে থাকুন। এছাড়াও প্রচুর পানি, জুস পান করুন।

৮। হাঁটুন/স্বাভাবিক কাজ করুন :
গর্ভাবস্থায় শারীরিক ব্যায়াম, হাঁটা-চলা প্রয়োজন। সারাদিন শুয়ে বসে না থেকে ছোটো ছোটো কাজ করা যেতে পারে। শারীরিক ব্যায়াম, হাঁটা-চলা করলে অস্বস্তি থেকে মুক্তি পাবেন এবং গর্ভকালীন ব্যথা থেকে মুক্তি পাবেন। ছোটো ছোটো কাজ করলে ক্ষতি হবে না। তবে ভারি কোনো কাজ করা যাবে না।

৯। খেজুর খান :
গর্ভবতী মায়েরা নিয়মিত ডিম, দুধের পাশাপাশি প্রতিদিন খেজুর খেতে পারেন। বিশেষ করে নয় মাসের গর্ভবতী মায়েরা দিনে কমপক্ষে পাঁচ থেকে সাতটি করে খেজুর খান।

১০। নিয়মিত মেডিক্যাল চেক-আপ :
বিষয়টি অত্যধিক গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে কয়েকটি চেক-আপের রিপোর্ট জানা থাকা অত্যন্ত জরুরি। যথা— রক্তের গ্রুপ (BG), হিমোগ্লোবিন (HB), আলট্রাসোনোগ্রাফি (USG—P/P), ব্লাড সুগার (RBS), ব্লাড প্রেসার।
প্রয়োজনের মুহূর্তে এসব রিপোর্ট খুব কাজে দেবে।

১১। বিশেষ আমল :
“ডেলিভারির ব্যথা উঠলে, পবিত্র কোরআন থেকে চার পারার নয় নম্বর পৃষ্ঠার প্রথম আয়াতটি পানিতে ফুঁ দিয়ে খেতে হবে। নিজে না পারলে, অন্যকে বলুন। ডেলিভারির ব্যথার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সময়ে (বিশেষ করে অনাগত সন্তানের বাবা) সুরা ইয়াসিন, দরুদ শরিফ, দোয়ায়ে ইউনুস পড়তেই থাকুন। দান-ছদকা করুন। ইস্তিগফার করুন। ফাঁকে ফাঁকে নামাজ পড়ুন। সেজদায় পড়ে কাঁদুন। মহান আল্লাহ পরীক্ষা নিতে পছন্দ করেন। বান্দার ইখলাসই মহান আল্লাহর কাছে গ্রহণযোগ্য।”

মোটকথা, সর্বোপরি সহিহ নিয়ত করে মহান আল্লাহর সাহায্য কামনা করুন। মনে রাখবেন, আপনার এবং আপনাদের সহিহ নিয়ত এবং দৃঢ় মনোবলই নরমাল ডেলিভারি হওয়ার প্রধান সহায়ক। মহান আল্লাহ সহায় হোন, আমিন।
“সম্ভব হলে, শেয়ার করুন।”

*বিশেষ প্রয়োজনে ইমেইল করতে পারেন—
mahdikhanayon@gmail.com


মাই নিউজ/মাহদী

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

শিরোনাম:
  ❖   লেখক ফোরামের এবারের ভ্রমণ ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ‘নুহাশ পল্লী’তে   ❖   বাসচাপায় প্রাণ হারালেন মামা-ভাগনে   ❖   ‘দৈনিক বিশ্ব ইজতেমা’— দেশজুড়ে ইজতেমার ধ্বনি   ❖   ২০২১ সালে বিশ্ব ইজতেমার দুই পর্বের তারিখ নির্ধারণ   ❖   আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হলো বিশ্ব ইজতেমা ২০২০   ❖   বিমান বিধ্বস্ত নিয়ে মিথ্যাচার: খামেনির পদত্যাগ চেয়ে বিক্ষোভ   ❖   প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে মুনাজাতে অংশ নেন   ❖   মোদি-অমিত বলেছেন, কাশ্মীর ইস্যুকে সমর্থন করলে মামলা তুলে নিবে:‌ জাকির নায়েক   ❖   প্রথমবারের মত ইরান সফরে কাতারের আমির   ❖   যুগে যুগে তাবলিগ