All for Joomla The Word of Web Design
উপ-সম্পাদকীয়

আইনজীবীদের আর্থিক সহায়তা প্রদান জরুরি হয়ে পড়েছে

মো. তাজুল ইসলাম খান :

করোনাভাইরাস বদলে দিয়েছে আমাদের জীবনের বাস্তবতা। এই উপদ্রুত সময়ে নতুন নতুন অভিজ্ঞতার মুখে পড়ছে সকল মানুষ। কোনোটায় মিশে আছে উদ্বেগ আর উৎকণ্ঠা। কোনোটায় পেশাজীবীদের মাধুর্যভরা কাহিনি কিংবা ব্যর্থতা আর মানুষের পাশে মানুষের দাঁড়ানোর ইতিবৃত্ত। নিজের বা পরিবারের সঙ্গে এভাবে একটানা সময় কাটানোর ঘটনা কোনোদিনই আমাদের জীবনে ঘটেনি। নিতান্ত প্রয়োজনে বাইরে গেলে সেখানেও বদলে যাওয়া পরিবেশ। ঘরে-বাহিরে সকলের করোনা প্রাদুর্ভাবের গল্প সকলের মুখে শোনা যায়। দেশে কিংবা বিদেশে একা বা একান্তেই আমরা পরিবার বা পরিবারের বাইরে বসবাস করছি। বিরূপ এই সময়ে অন্য স্বজনদের সঙ্গে বিচ্ছিন্নতা তীব্র হয়ে ওঠেছে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন পেশাজীবীগণ মুখোমুখি হচ্ছেন একেকরকম অভিজ্ঞতার।

ব্যক্তি থেকে পরিবার, পরিবার থেকে সমাজ, সমাজ থেকে রাষ্ট্র—বলতে গেলে সব ক্ষেত্রেই আইনজীবীদের সঠিক বিচরণ পরিলক্ষিত হয়। তাঁরা হচ্ছেন সমাজের শিক্ষিত এবং সচেতন জনগোষ্ঠী। সমাজের প্রতিটি অঙ্গেই আইনজীবীদের সজাগ দৃষ্টি বিদ্যমান। সমাজে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে সুখ, শান্তি, শৃঙ্খলা আনয়নের মাধ্যমে একটি আদর্শ এবং সুষ্ঠু সমাজ কাঠামাে গঠনে আইনজীবীদের যথাযথ অবদান অনস্বীকার্য। এ বিশ্বব্রহ্মাণ্ডে মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব। সমাজে মানবতাবােধ জাগ্রত রাখতে আইনের যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে যে দিক-নির্দেশনা আমরা পেয়ে থাকি তা আইনজীবীদের দিয়েই বিস্তার লাভ করে। মানুষকে মানুষের মর্যাদাসিক্ত করতে, সঠিক বিচার-বিবেচনার ক্ষেত্রে আইনজীবী সমাজের অবিচ্ছেদ্য অংশ। কোথাও কোনাে অচলাবস্থার সৃষ্টি হলে আইন সেখানে অন্তরায় হয়ে অভিভাবকের ভূমিকা পালন করলে আইনজীবীদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে তার সুষ্ঠু পরিসমাপ্তি ঘটে। হােক না-কোনাে ব্যক্তিগত সমস্যা বা হােক কোনাে পারিবারিক সমস্যা অথবা হােক সামাজিক বিশৃঙ্খলা বা রাষ্ট্রীয় কোনাে অচলবস্থা। কেবলমাত্র আইনজীবীরাই তথায় সমাধানের একমাত্র বাহক। আইনজীবীরাই আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে বিচার ব্যবস্থায় অবদান রেখে প্রতিটি সমস্যারই একটি সুষ্ঠু সমাধান করতে সক্ষম হোন। যার ফল ভােগ করে সমাজের সর্বস্তরের জনগণ। কলুষিত সমাজে সঠিক আইনের ব্যবহার করে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে পবিত্র করতে সহায়তা করেন অাইনজীবীগণ। তাঁদের দিক-দির্দেশনায় বিবাদ, বিরােধ, অপরাধ, বিশৃঙ্খলা, অরাজকতা, কলুষতা দূর হয়ে যায়। যার জন্যই আইনজীবীরা সমাজের একমাত্র মূল অংশ। এ সভ্য সমাজে এই জনগােষ্ঠী যতদিন বিরাজ করবে ততদিন সমাজ সঠিক নিয়মে পথ চলতে সক্ষম। অপরপক্ষে যে সমাজে আইনজীবীদের আইন চর্চা নেই, আইনজীবীদের কার্যবিহীন সে সমাজ অপাংতেয় ও মৃত। তাতে সন্দেহের কোনাে অবকাশ নেই যা বললেও অত্যুক্তি হবে না।

আর্থিক সংশ্লেয় ব্যতিরেকে যেকোনাে কর্মই সাফল্য লাভ করে না। কর্মে প্রণোদনা বিশেষভাবে জরুরি। বিজ্ঞ আইনজীবীরা আমাদের সমাজের বিবেক। সমাজের সর্বস্তরের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে বিজ্ঞ আইনজীবীদের সরব উপস্থিতি নানাভাবে লক্ষণীয়। বিজ্ঞ আইনজীবীগণ সমাজ বিনির্মাণে যেভাবে অবদান রেখে চলেছেন তাঁদের উন্নয়নের লক্ষ্যেও আর্থিক সংশ্লিষ্টতা একান্ত প্রয়োজন। বিজ্ঞ আইনজীবীরা ডিগ্রি নিয়ে অনেক সময় আর্থিক সংকটে পড়ে থাকেন। তাঁরা আইন পেশা ব্যতীত অন্য কোনো কাজ করতে পারেন না। এ ছাড়া সব আইনজীবী পেশায় সক্রিয় হতে পারেন না। অনেক সময় বয়সের কারণেও তাঁদের সমস্যা হয়। বিভিন্ন দালাল, টাউট, বাটপাড়ের কারণে আইন পেশা অনেক সময় অনেক চ্যালেঞ্জিং হয়ে দাঁড়ায়। আইন পেশার সব থেকে বড়ো উপকরণ হচ্ছে মামলা গ্রহণ করা। মামলা না-আসলে যত বড়ো মাপের আইনজীবী হােক না-কেন পেশাগত নানা প্রকারের সমস্যায় পড়তে হয়। আর মামলা আসলেও হবে না; তা বিজ্ঞ আদালতে উপস্থাপনের মাধ্যমে আয়-রোজগারের একটা ব্যবস্থা হয়। চাকরিজীবীগণ মাস শেষে তাঁদের সংশ্লিষ্ট বেতন-ভাতা উত্তোলন করে সংসার চালালেও আইনজীবীদের প্রতিদিনকার আইন পেশার মাধ্যমে অর্জিত উপার্জন দ্বারা পরিবারে ব্যয়ভার মেটাতে হয়।

বর্তমানে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে সমগ্র পৃথিবীর পেশাজীবীরা তাঁদের নিজ কর্মকাণ্ড থেকে অঘোষিত অবসর গ্রহণ করে ঘরের আবদ্ধ হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। অন্যান্য পেশাজীবীদের মতো আইনজীবীরাও নিজেদের আয়-উপার্জন থেকে বিচ্যুত হয়ে থাকলেও অপরাপর পেশাজীবীদের চেয়ে বেশি কষ্টে আর্থিক সংকটে ভুগছেন। বাংলাদেশ বার কাউন্সিল বিজ্ঞ আইনজীবীদের নিয়ন্ত্রণকারী ও সনদপ্রদানকারী সংস্থা। দেশের সকল বার অ্যাসোসিয়েশনগুলোও বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের আওতাভুক্ত। আইনজীবীদের আর্থিক এই বিপদের সময়ে বার কাউন্সিল তাঁদের বিভিন্ন ফান্ড থেকে জৈষ্ঠ্যতার ভিত্তিতে আর্থিক অনুদান প্রদানসহ তাঁদের বেনিভোলেন্ট ফান্ডের টাকা এই সময়ে প্রদানের ব্যবস্থা করলে বিজ্ঞ আইনজীবীগণ বিশেষভাবে উপকৃত ও লাভবান হবেন। তা ছাড়া বার অ্যাসোসিয়েশনগুলো তাঁদের নিজস্ব তহবিল এবং আইনজীবীদের বেনিভোলেন্ট ফান্ডের টাকা এই বিপদকালীন মুহূর্তে প্রদানের ব্যবস্থা করে বিরাট অবদান রাখতে পারেন। বিষয়টির প্রতি সংশ্লিষ্ট সকলের যথাযথ অবদান বিশেষভাবে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

*লেখক : অ্যাডভোকেট, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট এবং নোটারি পাবলিক, (সমগ্র বাংলাদেশ)

মাই নিউজ/মাহদী

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

শিরোনাম:
  ❖   সংযুক্ত আরব আমিরাত কোভিড -19 এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে রাশিয়ার গ্রোজনিতে চিকিত্সা সহায়তা পাঠিয়েছে   ❖   এই পর্যন্ত ৬১ টি দেশে ৭০১ টন চিকিৎসা সহায়তা পাঠিয়েছে আরব আমিরাত   ❖   বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন থেকে যাত্রীদের ছাড় দেওয়ার কথা ভাবছে বৃটেন   ❖   আরব আমিরাতে আজমানে আগামীকাল হতে সিনেমা, জিম, সেলুন ও যা যা খোলা হবে !   ❖   রাস্তার ছেলে   ❖   সাধারণ রোগীরা কি চিকিৎসা পাচ্ছে?   ❖   বাজেট দিয়ে কী হবে?   ❖   তুরষ্ক পাঠ্যবইয়ে জিহাদ ঢুকিয়েছে, বের করেছে বিবর্তনবাদ   ❖   আরব আমিরাতের করোনা দুর্যোগ মোকাবেলায় ভাইস প্রেসিডেন্টের অনলাইন বৈঠক !   ❖   চার্জ ফ্রি রেমিট্যান্স প্রেরণ সুবিধা চালু করল ব্যাংক এশিয়া