All for Joomla The Word of Web Design
উপন্যাস

ধারাবাহিক মনস্তাত্ত্বিক উপন্যাস

ফ্লেউর ডে লিস (পর্ব : ৫)

মাসউদ আহমাদ
(তরুণ লেখক)


যোগ্যতা অর্জনকে কাজ বলে না। যোগ্যতার প্রকাশ হলো কাজ। কোনো প্রতিভা শুধু প্রতিভা থাকার নাম নয়, নিজেকে বিকশিত করাই প্রতিভা। শেখার চেয়ে উত্তম বিষয় হলো, যা শেখা হলো তা জানানো।

সূর্য বলে কিছু রয়েছে, এর কোনো মূল্য নেই, মূল্যায়ন তো এর উদয় ও আলোদানে। পৃথিবী সবসময় ঘুরছে, এর মানে নেই, মানে তো দিন রাত ও ঋতুর পরিবর্তনে। রঙিন আকাশ বাস্তবে না হলেও আলোর খেলার আকাশের রংয়ে আমরা মুগ্ধ হই। কারও অর্জন কম হতে পারে, কিন্তু তিনি সবার জন্য অনেক বিতরণ করতে পারেন না তা নয়। তুমি ঘুমিয়েই কাটিয়ে দিতে পারো, কিন্তু অবচেতন মনের ভাবনাই তোমাকে সফলতা এনে দেয়। পৃথিবীটা এমনই৷ এখানে সবসময় কিছু ঘটে, কিছু কার্যকারণ তৈরি হয়। নতুন রহস্য আসে, সমাধান পুরোনো হয়। মাহদি মিলান হয়, সোফির জগতের মতো নিজের অস্তিত্ব নিয়ে বিভ্রান্ত হয় প্রধান চরিত্র। ঘুম ভাঙে, অদ্ভুত লাগা অনুভূতির কারণে।

-এবার কী?

মাঠে শুয়ে থাকার সময়ের মতো হয়েছে আবার। পাশে এসে কেউ বসেছে বলে মনে হয়েছে মিলানের। কিন্তু চোখ খুলে সে কাউকে দেখতে পেল না। তার হাত থেকে মোবাইল পড়ে আছে মাটিতে। মিলান মোবাইল তুলে নিলো। ভালোবাসা নিয়ে যথেষ্ট পড়া হয়েছে। এটা স্রেফ অনুভূতি। এই সব হাবিজাবি অনুভূতি নিয়ে মিলানের চলে না। তার অনেক কাজ পড়ে আছে।

এখন দুপুর। ক্ষুধা পেয়েছে তার। বাগান থেকে বেরিয়ে গেল।

ফ্লেউর ডে লিস রেস্টুরেন্টের এক কোনায় গিয়ে বসেছে মিলান। খাবারের অর্ডার করা হয়ে গেছে। এদিকওদিক তাকিয়ে কিছুক্ষণ কাটাতেই খাবার এসে গেল। মিলান এখন ভাবতে লাগল। তার সাথে আজ অদ্ভুত কিছু হচ্ছে। এটা আসলেই অদ্ভুত এখন। সে দুইবার এমন হয়েছে, পাশে কারও উপস্থিতি অনুভব করেছে, কিন্তু কাউকে দেখতে পায়নি। এমন হয় না। রেস্টুরেন্টে মিলানের আব্বুও ঢুকেছেন। মিলানকে খেয়াল করে তিনি এদিকেই এগিয়ে এলেন।

‘তোমাকে চিন্তিত মনে হচ্ছে।’ কাছে এসেই বললেন তিনি।

মিলান তাকে বসতে বলে বলল, ‘আমার সাহায্য প্রয়োজন।’

‘তোমার কিছু ক্ষতি হবে বলে মনে হয় না।’ মিলানের অদ্ভুত অনুভূতির কথা শোনার পর তার আব্বু মন্তব্য করলেন। ‘ক্ষতি হওয়ার থাকলে হতো।’

‘আমার এটা বোঝা প্রয়োজন। আবার গায়েব হতে রাজি না আমি।’

আগেরবারের প্রসঙ্গ মিলান এখনো তার আব্বুর সামনে এগিয়ে নিলো না। তার আব্বু কি জানেন মিলানের সব মনে আছে? সেসব মনে থাকা অস্বাভাবিক।
‘আমার মনে হচ্ছে তোমার দিনকাল পানসে যাচ্ছে। একটু স্বাদ আনার চেষ্টা করো। তোমার বিশেষ কিছু আবদার থাকলে আমাকে নির্দ্বিধায় বলে ফেল।’

‘আবদারের বিষয় নেই। তবে সম্ভবত হিলডাকে প্রয়োজন হবে।’ মিলান মনে হয় সত্যিটা বুঝতে পারল।

‘ঠিকাছে, ঠিকাছে। আমি তাকে ব্যস্ত রাখব না।… আচ্ছা, খাও তাহলে।’

হিলডা রাবিলেরো, আদ্রিয়া ভিনা আর কয়েকজন বন্ধুকে একত্র করে মিলান তার ব্যাপারটা খুলে বলল। এ-ও যোগ করল যে, তাকে হঠাৎ করে উধাও করে ফেলা হতে পারে। মিলান বিশেষ কিছু অনুভব করছে। মিলানের অনুভূতিটা জোরালো হতে থাকল। তারপর একদিন রীতিমতো বাড়িতে তার রুম থেকে নাই হয়ে গেল। বন্ধুদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ল।

ঘটনাগুলো দ্রুত ঘটে যাচ্ছে। কোত্থেকে কী হচ্ছে সাধারণ কারোই মাথায় ধরছে না। এরমধ্যেই হিলডার সাথে আদ্রিয়া নতুন কিছু শুরু করল।… (চলবে) ●

মাই নিউজ/মাহদী

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

শিরোনাম:
  ❖   ইসলামোফোবিয়া কি স্বাধীন ভারতে নতুন ঘটনা? একটি আলোচনা   ❖   ‘মুসলিমদের চিকিৎসা না করে জেলে পাঠানো উচিত’ বলে এবার ক্ষমা চাইলেন ডাক্তার লালচান্দানি   ❖   সংযুক্ত আরব আমিরাত কোভিড -19 এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে রাশিয়ার গ্রোজনিতে চিকিত্সা সহায়তা পাঠিয়েছে   ❖   এই পর্যন্ত ৬১ টি দেশে ৭০১ টন চিকিৎসা সহায়তা পাঠিয়েছে আরব আমিরাত   ❖   বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন থেকে যাত্রীদের ছাড় দেওয়ার কথা ভাবছে বৃটেন   ❖   আরব আমিরাতে আজমানে আগামীকাল হতে সিনেমা, জিম, সেলুন ও যা যা খোলা হবে !   ❖   রাস্তার ছেলে   ❖   সাধারণ রোগীরা কি চিকিৎসা পাচ্ছে?   ❖   বাজেট দিয়ে কী হবে?   ❖   তুরষ্ক পাঠ্যবইয়ে জিহাদ ঢুকিয়েছে, বের করেছে বিবর্তনবাদ