All for Joomla The Word of Web Design
উপন্যাস

ধারাবাহিক মনস্তাত্ত্বিক উপন্যাস

ফ্লেউর ডে লিস (পর্ব : ৬)

মাসউদ আহমাদ
(তরুণ লেখক)

জিব্রালটার প্রণালি। মিলান তীরে দাঁড়িয়ে দেখতে পাচ্ছে সব, বর্তমান এবং অতীত। কতকিছু ঘটে গিয়েছে এই প্রণালির তীরে! মিলানের চোখের সামনে ইতিহাসের নানা চিত্রপটের পরিবর্তন হচ্ছে দ্রুত। তার দৃষ্টি ফোকাস হলো জাবালে তারিকের নামকরণের সময়টাতে। কী ছিল সেই দিন!

এই সুন্দর প্রকৃতি ও আবহাওয়া মিলানের মন জুড়িয়ে দিচ্ছে। সে খুব নিশ্চিন্ত অনুভব করছে। মিলানের ছেড়ে আসা কিউবা নিয়ে কোনো বেদনা নেই। সে তার পরিবার-পরিজন ও বন্ধুদের সবাইকে জানিয়ে দিয়েছে ইতিমধ্যে, মিলানকে নিয়ে ভাবনার কিছু নেই। কিন্তু কিছু দায়িত্ব যে দিয়ে এসেছিল মিলান তার বোন ও হিলডাকে, তা ঠিকভাবে পালন করতে বলেছে।

কারা মিলানকে এখানে নিয়ে এসেছে? মিলান তাদের চেনে না, কিন্তু তার জীবন আশঙ্কায় নেই সে তা উপলব্ধি করেছে।
মিলানকে দুদিন স্পেনজুড়ে ঘুরে বেড়ানোর অনুমতি দেওয়া হয়েছে। মিলান চেয়েছিল যে, সে দুদিন বিশ্রাম নেবে।

কতকাল আগের স্বপ্নগুলো আজও বাস্তবায়িত হয়নি। আজও জিব্রালটার প্রণালির জলস্রোত জাহাজ টেনে নিতে পারে, আজও জাবালে তারিকে প্রতিধ্বনিত হয় নৈঃশব্দ্যের হাহাকার—এই শান্ত ও শীতল বাতাসের শো শো ধ্বনি ছাড়িয়ে, আছড়ে পড়া ঢেউ, জলযান ও প্রাণবানদের সরব উপস্থিতিকে ডিঙিয়ে।

এই অঞ্চলের সেই মানুষেরা, ইসলামপূর্ব যুগে যাদের কথা বলার ভাষা বলে কিছু ছিল না, সভ্যতার ধারণা বলে কিছু ছিল না নৈঃশব্দ্যে তাদের উপস্থিতি। আজও যারা ভাবে তারা শুরু থেকেই সভ্যভব্য ছিল, তাদের চিন্তা এই নৈঃশব্দ্যের অনুভূতি। মহাকাল পৃথিবীর গর্ভে হারিয়ে যায়, মহাজীবনের সঙ্গীত ভাসে আলোয়-বাতাসে, কতকিছু হয়, কিন্তু অদ্ভুত মানুষের চিন্তা ও ধারণাই শুধু।

মিলান হাঁটছে। তার সামনে, পেছনে লবণাক্ত পানির গভীরতা। একদিকে ভূমধ্যসাগর আর একদিকে অতলান্তিক মহাসাগর। মিলান যদি আজ পৃথিবীর সেই দিনগুলোর কেউ হতো, যখন মানুষেরা জীবন বাঁচানোর জন্যই বেঁচেছে। পৃথিবীর এত সব জটিলতা যখন ছিল না। মিলান ভাবছে, তা হলে খুব আনন্দদায়ক হতো।

বাতাসে মিলানের হাঁটু ছাড়িয়ে যাওয়া জ্যাকেটের প্রান্ত উড়ছে। পুব থেকে ভেসে আসছে কোনো জাহাজের হুইসল। কোথাও পাখি ডাকছে। মিলান এরমধ্যেই দেখতে পেল হিলডাকে।

‘হিলডা রাবিলেরো! সে এখানে কেন!’ মিলান বলে উঠল।

দাঁড়িয়ে গেল মিলান আর ধীরপায়ে এগিয়ে এলো হিলডা।

‘একা বোধ করবে বলে চলে এলাম।’ কাছে এসে বলল মেয়েটি।

মিলানের গায়ে লাগল। ‘আমার কখনো একাকিত্বের বোধ হয় না। তাহলে তুমি ফিরতে পার।’ মিলান পেছন ফিরে হাঁটতে লাগল।

‘হেই, দাঁড়াও!’ এখন অন্তত এই প্রতিক্রিয়া আশা করেনি হিলডা। সে দ্রুত এগিয়ে গেল। ‘আমাকে তোমার মতোই নিয়ে আসা হয়েছে। আমি হতবুদ্ধিকর অবস্থায় আছি, একটু সাহায্য করো।’

‘তোমার কোনো উদ্দেশ্য নেই?’

‘না। তোমাকে পটানোর কথা মোটেই ভাবিনি!’

‘আমাকে পটানোর কথা মানে!’ মিলান চোখমুখ কুঁচকে ফেলল।

‘এর আর মানে নেই। এসো, আমরা ঘুরেফিরে দেখি।’ হিলডা মিলানের আগে চলতে লাগল। একটুক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকে মিলান তার পিছু নিলো।

‘আজ থেকে সতেরো শ বছর আগে, কোনো একদিন, আমাদের বয়সী এক যুগল এভাবেই হেঁটে যাচ্ছিল…।’ হিলডা বলছিল। মিলান তাকে থামিয়ে দিয়ে বলল, ‘আমরা যুগল নই।’ ‘হ্যাঁ, তারা হেঁটে যাচ্ছিল। তাদের গন্তব্য ছিল…’ এই বাজে ছেলেটাকে পাত্তা না দিলেই ভালো লাগবে হিলডার। ‘…সেভিল।’

‘তোমার অনুভূতিগুলো এমন কেন!’ মিলান বলল।

‘এমন মানে?’ হিলডার প্রশ্ন।

‘আমাকে মনে মনে বাজে ছেলে বলেছ।’

‘মনে মনে যা ইচ্ছা বলতে পারি। প্রকাশ করিনি যেহেতু, সিরিয়াস ধরে নিচ্ছ কেন? সমস্যা কী?! চুপচাপ হাঁট।’ গল্প বলায় বাধা দেওয়া অন্তত মেনে যাওয়া যায় না হিলডার।

‘সেভিল ছিল গন্তব্য।’ হিলডা বলতে থাকল। মিলান চুপ করে হাঁটতে শুরু করেছে। ‘সেভিলের এক প্রান্তে তাদের বাড়ি ছিল। তারা ছিল ভিজিগোথস।…’ (চলবে) ●

মাই নিউজ/মাহদী

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

শিরোনাম:
  ❖   সংযুক্ত আরব আমিরাত কোভিড -19 এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে রাশিয়ার গ্রোজনিতে চিকিত্সা সহায়তা পাঠিয়েছে   ❖   এই পর্যন্ত ৬১ টি দেশে ৭০১ টন চিকিৎসা সহায়তা পাঠিয়েছে আরব আমিরাত   ❖   বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন থেকে যাত্রীদের ছাড় দেওয়ার কথা ভাবছে বৃটেন   ❖   আরব আমিরাতে আজমানে আগামীকাল হতে সিনেমা, জিম, সেলুন ও যা যা খোলা হবে !   ❖   রাস্তার ছেলে   ❖   সাধারণ রোগীরা কি চিকিৎসা পাচ্ছে?   ❖   বাজেট দিয়ে কী হবে?   ❖   তুরষ্ক পাঠ্যবইয়ে জিহাদ ঢুকিয়েছে, বের করেছে বিবর্তনবাদ   ❖   আরব আমিরাতের করোনা দুর্যোগ মোকাবেলায় ভাইস প্রেসিডেন্টের অনলাইন বৈঠক !   ❖   চার্জ ফ্রি রেমিট্যান্স প্রেরণ সুবিধা চালু করল ব্যাংক এশিয়া