All for Joomla The Word of Web Design
ইসলামী জীবন

তিনি কত দয়ালু এবং ক্ষমাশীল

ফুয়াদ মাকসুদ

আল্লাহ নাম শুনলে আমরা ভয় পেয়ে যাই ৷ তিনি তো মহা শক্তিধর ৷ পৃথিবীতে যারা সামান্যতম, ক্ষণস্থায়ী শক্তিধর তাদের হুমকি-ধামকিতে আমরা সব সময়ই ভয়ে তটস্থ থাকি ৷ কখন কি করে ফেলে কিছুই জানি না ৷ ট্রাম্প, কিম জং, পুতিন আরো কতজন ৷ উঠতে বসতে আমরা তাদের নামই জপি ৷ রেগে গেলেই এরা সব শেষ করে দিবে ৷ হা, এরা এমন ক্ষমতাধর, যারা তাদের ক্ষমতা তাদের পুরো জীবনেও এ ক্ষমতা ধরে রাখতে ব্যার্থ ৷ মেয়াদ শেষ তো তাদের ক্ষমতাও শেষ ৷ আল্লাহ এমন সত্তা যার ক্ষমতার কোন সীমা নেই ৷ শেষ নেই ৷ যিনি আদি অনন্ত ৷ যিনি ধ্বংসের ইচ্ছা করলে কোন অস্ত্রের প্রয়োজন পড়েনা ৷ বোমা মারার প্রয়োজন পড়েনা ৷ শুধু “কুন” বললেই হয়ে যায় ৷ সেই রাব্বে কারিমকে কেমন ভয় করা প্রয়োজন? যিনি এমন ক্ষমতার অধিকারী তিনি তো সকাল বিকাল বান্দাদেরকে শুধু মারের উপর রাখার কথা ছিলো! সারাদিন চোখ রাঙানীর উপর রাখার কথা ছিলো! কিন্তু তিনি কি বলে জানেন! তিনি তার পবিত্র গ্রন্থ কুরআনুল কারিমের শুরুতে তাঁর বান্দারা যাতে তাঁকে ভয় পেয়ে না যায়, তাই তিনি তাদেরকে বলছেন, الرحمن الرحيم তিনি অতি দয়ালু, চির দয়াময় ৷ বান্দাকে তিনি বুঝাচ্ছেন, বান্দা তুমি ক্ষুদ্র, আমি মহান সত্তাকে ভয় পেয়ে যেও না ৷ আমি তোমাকে ধ্বংস করে দিবো না ৷ আমি তোমাকে আদর করে লালন পালন করবো ৷ তুমি ভয় পেয়ে যাচ্ছ এ কথা শুনে যে আমি জাহান্নাম তৈরী করেছি তোমাদেরকে শাস্তি দেয়ার জন্য! শুনো, আমি তোমাকে অন্যায়ের সাথে সাথেই শাস্তি দিয়ে ফেলবো না ৷ বরং তোমাকে ক্ষমা চাওয়ার সুযোগ দিবো ৷ যদি তুমি ক্ষমা চাও তবে আমি তোমাকে ক্ষমা করে দিবো ৷ তুমি পেরেশান, তুমি অনেক বড় পাপ করেছো! অনেক বেশী গুনাহ করে ফেলেছো! কোন সমস্যা নেই ৷ তুমি আমার কাছে ক্ষমা চাও আমি তোমাকে ক্ষমা করে দিবো ৷

আল্লাহ সূরা জুমারের ৫৩ নং আয়াতে বলেন, قُلْ يٰعِبَادِىَ الَّذِيْنَ اَسْرَفُوْا عَلٰٓى اَنْفُسِهِمْ لَا تَقْنَطُوْا مِنْ رَّحْمَةِ اللّٰهِ‌ ؕ اِنَّ اللّٰهَ يَغْفِرُ الذُّنُوْبَ جَمِيْعًا‌ ؕ اِنَّهٗ هُوَ الْغَفُوْرُ الرَّحِيْمُم (হে রাসূল) আপনি বলে দিন, হে আমার বান্দাগণ! তোমরা যারা নিজেদের প্রতি অবিচার করেছো-আল্লাহর অনুগ্রহ হতে নিরাশ হইও না, আল্লাহর সকল পাপ ক্ষমা করে দিবেন। তিনি তো ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু। অন্যত্র আল্লাহ সুবহানাহু তা’য়ালা বলেন إِنَّ ٱللَّهَ لَا يَغْفِرُ أَن يُشْرَكَ بِهِۦ وَيَغْفِرُ مَا دُونَ ذَٰلِكَ لِمَن يَشَآءُ নিশ্চই আল্লাহ শিরকের গুনাহ ব্যতিত সকল গুনাহকে ক্ষমা করে দিবেন ৷ অর্থাৎ আল্লাহ শিরকের গুনাহ ছাড়া যত গুনাহ আছে সব গুনাহকেই ক্ষমা করে দিবেন ৷ শুধু তাই নয় ৷ আল্লাহ কুরআনের অনেক জায়গায় বলেছেন, إن الله غفور الرحيم নিশ্চই আল্লাহ ক্ষমাশীল ও চির দয়াময় ৷

হাদিসে হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর রাঃ থেকে বর্ণিত, 

عن ابن عمر. قال: ما زلنا نمسك عن الاستغفار لاهل الكبائر، حتى سمعنا من في نبينا صلى الله عليه و سلم يقول: ان الله تبارك و تعالى لا يغفر ان يشرك به و يغفر ما دون ذلك لمن يشاء. قال فإني أخرت شفاعتي لأهل الكبائر من أمتي يوم القيامة فأمسكنا عن كثير مما كان في انفسنا.

হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর রাঃ বলেন, দীর্ঘদিন পর্যন্ত আমরা কবীরা গুনাহকারীর জন্য ক্ষমা চাওয়া থেকে বিরত ছিলাম ৷ অবশেষে রাসূল সাঃ এর মুখ থেকে বলতে শুনলাম, নিশ্চয় আল্লাহ তায়ালা শিরকের গুনাহ ছাড়া সকল গুনাহ মাফ করে দেন ৷ আমি কিয়ামতের দিন আমার উম্মতের কবিরা গুনাহ কারিদের জন্য শাফায়াত রেখে দিয়েছি ৷ তারপর আমরা এতদিন পর্যন্ত যা ভাবতাম তা থেকে বিরত থাকলাম ৷ শুধু তাই নয় ৷

আল্লাহ তায়ালা বান্দার পাপ ক্ষমার ক্ষেত্রেও কত দয়াবান তা আল্লাহ তায়ালার আরেকটি কথার মাধ্যমে স্পষ্ট বুঝা যায়, সুনানে তিরমিযীতে একটি হাদিস এসেছে,

حدثنا انس ابن مالك، قال: سمعت رسول الله صلى الله عليه و سلم يقول: قال الله تبارك وتعالى: يا ابن آدم! انك ما دعوتني و رجوتني غفرت لك على ما كان فيك و لا أبالي، يا ابن آدم! لو بلغت ذنوبك عنان السماء ثم استغفرتني غفرت لك، و لا ابالي، يا ابن آدم! إنك لو أتيتني بقراب الأرض خطايا ثم لقيتني لا تشرك بي شيئا لأتيتك بقرابها مغفرة.

হযরত আনাস রাঃ বর্ণনা করেন, আমি রাসূল সাঃ কে বলতে শুনেছি, আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়ালা বলেন, হে আদম সন্তান! যতক্ষণ পর্যন্ত তুমি আমাকে ডাকবে, আমার নিকট ক্ষমার আশা করবে, ততক্ষণ পর্যন্ত আমি তোমাকে ক্ষমা করে দিবো ৷ তোমার যত গুনহই থাকুক না কেন, তা আমি পরোয়া করি না ৷ হে আদম সন্তান! তোমার পাপ যদি আসমানের কিনারা পর্যন্ত পৌছে যায়, তারপরও তুমি আমার নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করো, আমি তোমাকে ক্ষমা করে দিবো ৷ আমি কোন কিছুর পরওয়া করবো না ৷ হে আদম সন্তান! তুমি যদি আমার নিকট শিরক ব্যতিত পৃথিবী পরিমান পাপ নিয়েও আসো আমি তোমাকে সমপরিমাণ ক্ষমা করে দিবো ৷ হিসেব করুন ৷

কত দয়ালু আল্লাহ ৷ বান্দাহ পাপ করবে আল্লাহ ক্ষমা করবে ৷ বান্দাহ আবার পাপ করবে, আল্লাহ আবার ক্ষমা করবে ৷ এভাবেই চলতে থাকবে তাঁর ক্ষমা ৷ তিনি চান কোন ছূতোয় যদি বান্দাকে জান্নাতে নিয়ে যেতে ৷ সে মালিক দয়া করে আমাদেরকে একটি রহমাত, মাগফেরাত ও নাজাতের মাস দিয়েছে ৷ আসুন আমরা মালিকের নিকট ক্ষমা চেয়ে পরিশুদ্ধ হয়ে সুন্দরভাবে জীবন যাপন করি ৷

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

শিরোনাম:
  ❖   মোহাম্মদকে (সা:) কটাক্ষ করায় ফ্রান্স সরকারকে ক্ষমা প্রার্থনার আহ্বান জামায়াতের   ❖   রাসূল (সা.)-এর অবমাননার ঘটনায় সরকারকে রাষ্ট্রীয়ভাবে প্রতিবাদ জানাতে হবে : জামায়াত   ❖   ফ্রান্সের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে : নূর হোসাইন কাসেমী   ❖   প্রবাসী আয়ে অষ্টম স্থানে বাংলাদেশ : বিশ্বব্যাংক   ❖   বাকস্বাধীনতা লাগামহীন নয়, সব ধর্মের প্রতি সম্মান জানানো উচিত : ট্রুডো   ❖   মাদরাসা শিক্ষা নিয়ে অপপ্রচারের সুযোগ নেই : তথ্য প্রতিমন্ত্রী   ❖   লালমনিরহাটের গণপিটুনি ও পুড়িয়ে হত্যাকান্ডের সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের দ্রুত শাস্তির আওতায় আনতে হবে: ইশা ছাত্র আন্দোলন, ঢাবি শাখা   ❖   কওমী শিক্ষার্থীদের জাতির উন্নয়নের অগ্রদূত হিসেবে শপথ গ্রহণ করতে হবে: মুফতি শেখ মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম   ❖   ‘হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর শিক্ষা সমগ্র মানব জাতির জন্য অনুসরণীয়’- রাষ্ট্রপতি   ❖   ফরাসিদের সাজা দেয়ার অধিকার মুসলমানদের আছে: মাহাথির