All for Joomla The Word of Web Design
বাংলাদেশ

কে এই শেখ আহমদ সাহেব??

ইসমাইল আযহারি

২০০৮ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত উস্তাদে মুহতারাম আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী সাহেবের নাম যেমন হাটহাজারি মাদ্রাসার সবার মুখে মুখে, ঠিক তেমনি
১৯৭০ এর দশক থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত সবার মুখে মুখে একটা নামই শুনা যেতো, সেটা হচ্ছে শেখ_আহমদ সাহেব হাফিযাহুল্লাহ।

১৯৯০ এর দশকে শাইখুল হাদীস আল্লামা আযীযুল হক রহঃ এর পরে বাংলাদেশে হাদীস শাস্ত্রের সবচেয়ে তরুন বিজ্ঞ আলেম হিসাবে আল্লামা শেখ আহমদ সাহেবের নামটাই উচ্চারিত হতো।

ওনার হাদীস এর দরস দান সমপর্কে আমাদের উস্তাদ দের মুখে শুনেছি,,,৷ তিনি হাদীস এর মাধ্যমে ফিকহে হানাফির জটিল বিষয় গুলি সহজে সমাধান করতেন,
মুতালায় তিনি প্রচুর সময় ব্যায় করেন।

যারা আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী হাফিঃ এর পক্ষ নিয়ে শেখ সাহেব হুযুর এর বিরুদ্ধে গালিগালাজ করতেছে, এরা সবাই কুলাংগার. শেখ সাহেব হুযুরের এলেমী যোগ্যতা আর তাকওয়া নিয়ে খোদ জুনাইদ বাবুনগরী হাফিঃ প্রশংসা করতেন।

বর্তমান হাটহাজারী মাদ্রাসার অনেক উস্তাদের উস্তাদ হচ্ছেন এই শেখ আহমদ সাহেব, মুফতী কেফায়েত উল্লাহ সাহেব, মুফতী সাইদ সাহেব সহ অনেকেই হুযুরের ছাত্র,৷ আমার মেশকাত পর্যন্ত যত শিক্ষক অতিবাহিত হয়েছে, সবাই এলমে হাদীস পড়েছিলেন আল্লামা শেখ আহমদ সাহেবের কাছে,
তিনি উস্তযুল আসাতিযাহ।

কিছু মুনাফিক সব জায়গায় থাকে,
তারা পরিস্থিতি ঘোলাটে করে,
২০০৪ সালে এইরকম পরিস্থিতি ঘোলাটে করেছিলো
চকরিয়ার কিছু কুলাংগার ছাত্র,

এই চকরিয়ার পোলাপাইন গুলো ক্লাসে উপস্থিত হতোনা, মাদ্রাসায় নিজেদের প্রভাব বিস্তারের জন্য অন্যান্য জেলার ছাত্রদের সাথে বাজে ব্যবহার করতো,

তাদের অত্যাচারে অন্যান্য ছাত্ররা অতিষ্ট হয়ে পড়েছিলো,,,তাদের এইসব অনৈতিক কাজের জন্য তাদেরকে শাস্তির মুখোমুখি করেন আল্লামা
শেখ আহমদ সাহেব। ওইসব ছাত্ররা কোথায় যায়, কি করে, সব কিছুর উপর নজরদারি শুরু হয়, কিছু ছাত্র বহিঃষ্কার হয়ে মাদ্রাসার আইন অমান্য করার অভিযোগে।

তাই তারা নিজেদের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের সুবিধা করতে সর্বশেষ খুব নিম্নমানের একটা অপবাদ আল্লামা শেখ আহমদ সাহেবের বিরুদ্ধে ছড়িয়ে দেয়,,, এবং এইটা নিয়ে মাদ্রাসায় হুযুরের বিদায় দাবী করে,,৷ আর চারদিকে মিটিং মিছিল করে,,,,
এইসব কুলাংগারদের কারণে মাদ্রাসায় হট্রগল লেগে যায়,,,

একটা মিথ্যা অপবাদ মিথ্যা প্রমান করতে হলে যথেষ্ট সময় দরকার,, কিন্ত তখন পরিস্থিতি একটু ঘোলাটে হয়ে যায়,,একটা মিথ্যা বারবার আলোচনা হতে থাকলে তা অন্যদের উপত সত্যের মত প্রভাব বিস্তার করে,,৷ ঠিক যেমন আম্মাজান আয়েশা রাঃ এর বিরুদ্ধে মুনাফিকরা মিথ্যা রটাইছিলো,আর সেখানে কিছু মুসলিম সাহাবী সেই মিথ্যায় বিভ্রান্ত হয়ে গিয়েছিলেন,

তেমনি মসনদে হাদীসের শাইখ, তাহাজ্জুদ গুজার, ওলীয়ে কামেল আল্লামা শাইখ আহমদ সাহেবের বিরুদ্ধেও কিছু মিথ্যা অপবাদ ছড়িয়ে পড়ে, তবে এখন যেহেতু ওহীর ব্যবস্থা নাই, তাই মিথ্যাকে প্রমান করার জন্য অনেক সময় দরকার ছিলো, তাই হাটহাজারী মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ হুযুর কে অন্য জায়গায় খেদমত করার জন্য অনুরোধ করেন,,৷ কারন চকরিয়া ছাত্রদের চক্রান্তে কিছু কমিটি মেম্বার জড়িয়ে পড়ে,৷ তাই হুযুর কে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়,৷

হুযুরের বরখাস্ত মানে এই নয় যে, হুযুর অপরাধী,
বরং মাঝেমধ্যে পরিস্থিতি শান্ত করতে কিছু সিদ্ধান্ত নিতে হয়ে,
জুলাইখার চক্রান্তে জেলে বন্দি হওয়া ইউসুফ আলাইহিসসালাম নিষ্পাপ ছিলেন
এইটা আমাদের বুঝতে হবে,

যাই হোক, হুযুর কে যেদিন বিদায় দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়,
ঠিক সেইদিন ঐতিহ্যবাহী নানুপুর মাদ্রাসার মুহতামিম
পীরে কামেল আল্লামা জমিরুদ্দিন নানুপুরী রহঃ
হযরত শেখ আহমদ সাহেবের জন্য গাঁড়ি পাঠিয়ে দেন,
এবং হুযুর কে নানুপুর মাদ্রাসার প্রধান শাইখুল হাদীস বানিয়ে দেওয় হয়,৷ এবং নানুপুর মাদ্রাসার সুনাম এতে করে আরো বৃদ্ধি পায়, শেখ আহমদ সাহেব হুযুর নানুপুরে প্রায় ১৪ বছর বোখারী শরিফের দরস প্রদান করেন।

অতপর আল্লাহর কি মহিমা,, যেই মাদারে উলুম হাটহাজারি থেকে হযরতকে অপবাদের বোঝা মাথায় নিয়ে বের হয়ে যেতে হয়েছিলো,সেই উম্মুল মাদারিসে
হুযুরের আবার ডাক পড়ে,৷ এবং সর্বশেষ হুযুর সেই উম্মুল মাদারিসের নায়েবে মুহতামিম নিযুক্ত হলেন।
এবং ভবিষ্যৎ প্রদান শাইখুল হাদীস ইনশা আল্লাহ।
আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী সাহেব যদি আমার এক চোখ হয়, তবে শেখ আহমদ সাহেব আমার আরেক চোখ। দুইজনই আমার সেরতাজ।
আল্লামা আহমদ শফী সাহেব ও আমাদের সেরতাজ।

আল্লামা শেখ আহমদ সাহেবের প্রত্যাবর্তন
এই যেনো ইউসুফ আলাইহিসসালাম এর ঘটনা কে স্বরণ করিয়ে দেয়,,,৷ যিনি আল্লাহর নবী হয়েও অপবাদের দায় মাথায় নিয়ে ১২ বছরের মত জেলে বন্দি ছিলেন,৷ অবশেষে আল্লাহ তাকে রাজত্ব দান করলেন।

নিশ্চয় তারা কৌশল করে, মহান আল্লাহ ও কৌশল করেন,৷ আর আল্লাহ তায়ালা উত্তম কৌশল অবলম্বন কারী।

 

 

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

শিরোনাম:
  ❖   কাল থেকে খুলে দেওয়া হচ্ছে আরব আমিরাতের মসজিদ   ❖   এডিআইও আবুধাবিতে স্টার্টআপের তহবিলের প্রবেশাধিকার বাড়ানোর জন্য শোরুক পার্টনার্স বেদায়া তহবিলে বিনিয়োগ করেছে   ❖   বাইতুল মোকাররমের খতিব হতে পারেন মাওলানা হাসান জামিল সাহেব!   ❖   ভারতীয় একজন কিডনী ব্যর্থতায় আক্রান্ত শিক্ষার্থীকে উদ্দেশ্যে করে বলেন, তুমি নিরাপদ হাতে রয়েছ   ❖   উচ্চ আদালতের স্থিতিবস্থা জারির পরও ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে রাজধানীর একটি মসজিদ   ❖   করোনাকালে ক্বওমী মাদরাসাগুলোর ১২ চ্যালেঞ্জ   ❖   চাকরিচ্যুৎ সেই ইমামকে স্বপদে বহাল করতে লিগ্যাল নোটিস   ❖   আজারবাইজানকে ১১ টন চিকিত্সা সহায়তা পাঠিয়েছে আমিরাত   ❖   রাতে নৌকার ছাদে জানাজা পড়ে লাশ ফেলা হতো সাগরে : খোদেজা বেগমের দুঃসাহসিক সমুদ্রযাত্রা   ❖   স্বেচ্ছাচার, স্বজনপ্রীতি ও স্বৈরাচার