All for Joomla The Word of Web Design
বিবিধ

আমিরাত: বরাকাহ পারমাণবিক শক্তি কেন্দ্রের ইউনিট ১ এর নিরাপদ উদ্বোধন

নিরাপদ উদ্বোধন হল আগমনী নির্গমন বিহীন বিদ্যুৎ প্রক্রিয়াকরণের বড় পদক্ষেপ -পারমাণবিক গুণমান এবং সুরক্ষার জন্য নিয়ন্ত্রক প্রয়োজনীয়তা এবং সর্বোচ্চ আন্তর্জাতিক মানের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ প্রক্রিয়া উপলব্ধ করা আবু ধাবি, 1 আগস্ট, 2020 (ডাব্লুএএম) — আমিরাত নিউক্লিয়ার এনার্জি কর্পোরেশন (ইএনইসি) আজ ঘোষণা করেছে যে তার পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণের সহায়ক নাওয়াহ এনার্জি সংস্থা (নাওয়াহ) সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবির আল ধাফরাহ অঞ্চলে অবস্থিত বরাকাহ পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ইউনিট 1 সফলভাবে শুরু করেছে ( সংযুক্ত আরব আমিরাতে)। এই পদক্ষেপটি সংযুক্ত আরব আমিরাতের শান্তিমূলক পারমাণবিক শক্তি কর্মসূচির বিতরণ করার ইতিহাসের ঐতিহাসিক মাইলফলক,কমপক্ষে পরবর্তী 60 বছরের জন্য দেশের পরিষ্কার বিদ্যুৎ উৎপাদনের প্রক্রিয়ায় অংশ হিসাবে। ফেব্রুয়ারিতে 2020 সালে ফেডারেল অথরিটি ফর নিউক্লিয়ার রেগুলেশন (এফএএনআর) থেকে অপারেটিং লাইসেন্স পাওয়ার পরে, এবং মার্চ মাসে 2020 সালে জ্বালানী সমাবেশ লোডিংয়ের সমাপ্তি, ইএনইসি এবং কোরিয়া ইলেকট্রিক পাওয়ার কর্পোরেশনের (কেইপিসিও) যৌথ উদ্যোগে পারমাণবিক কার্যক্রম এবং রক্ষণাবেক্ষণের সহায়ক সংস্থা নাওয়াহ ,বরাকাহ প্ল্যান্টের প্রথম পারমাণবিক শক্তি চুল্লী সফলভাবে শুরু করার আগে, একটি বিস্তৃত পরীক্ষামূলক কর্মসূচির মাধ্যমে নিরাপদে অগ্রগতি করেছে। ইউনিট 1-এর স্টার্ট-আপটি প্রথমবার চিহ্নিত করেছে যে চুল্লিটি নিরাপদে তাপ উত্পাদন করে, যা বাষ্প তৈরির জন্য, বিদ্যুত উত্পাদন করতে টারবাইন ঘুরিয়ে ব্যবহার করা হয়। নাওয়াহ যোগ্য এবং পারমাণবিক অপারেটরদের চার্জ করা দলটি প্রক্রিয়াটি নিরাপদে নিয়ন্ত্রণ ও চুল্লিটির পাওয়ার আউটপুট নিয়ন্ত্রণে মনোযোগ দেয়। বেশ কয়েক সপ্তাহ পরে এবং অসংখ্য সুরক্ষা পরীক্ষা আয়োজনের পরে, ইউনিট 1 সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিদ্যুত গ্রিডের সাথে সংযোগ স্থাপনের জন্য প্রস্তুত হবে, দেশের বাড়ি এবং ব্যবসায় প্রথম মেগাওয়াট স্বচ্ছ বিদ্যুত সরবরাহ করবে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্বতন্ত্র পারমাণবিক নিয়ন্ত্রক, এফএএনআর এর ধারাবাহিক তত্ত্বাবধানের সাথে পরীক্ষা করা হয়েছে এবং ওয়ার্ল্ড অ্যাসোসিয়েশন অব নিউক্লিয়ার অপারেটরের (ডাব্লুএনও) জানুয়ারি 2020তে একটি প্রারম্ভিক পর্যালোচনা (পিএসইউআর) সমাপ্তির পরে, অপারেটিং লাইসেন্স প্রাপ্তির আগে যা ইউনিট 1 কে পরমাণু শক্তি শিল্পের আন্তর্জাতিক সেরা অনুশীলনের সাথে একত্রিত করাকে নিশ্চিত করে। ইএনইসি প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইব্রাহিম আল হামমাদি বলেছেন: “আজ সংযুক্ত আরব আমিরাতের জন্য সত্যই একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত। এটি এক দশকেরও বেশি সময়ের দৃষ্টি, কৌশলগত পরিকল্পনা এবং শক্তিশালী প্রোগ্রাম পরিচালনার সর্বোচ্চ সীমা। সাম্প্রতিক বিশ্বব্যাপী প্রতিদ্বন্দিতা থাকা সত্ত্বেও, আমাদের দলটি ইউনিট 1 এর নিরাপদ ডেলিভারিতে অসামান্য স্থিতিস্থাপকতা এবং প্রতিশ্রুতি প্রদর্শন করেছে। আমরা আমাদের জাতির বিদ্যুতের চাহিদার এক চতুর্থাংশ পর্যন্ত অর্জনের লক্ষ্য এবং ভবিষ্যতে বিকাশকে নিরাপদ, নির্ভরযোগ্য এবং নির্গমন বিহীন বিদ্যুতের সাথে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে এখন আরও এক ধাপ এগিয়ে আছি। “আমাদের নেতৃত্বের দৃষ্টিভঙ্গি উপলব্ধির মাধ্যমে, বরাকাহ পারমাণবিক শক্তি কেন্দ্রটি জাতির জন্য উন্নতির একটি ইঞ্জিনে পরিণত হয়েছে। এটি সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিদ্যুতের 25% শূন্য কার্বন নির্গমন দিয়ে সরবরাহ করবে এবং টেকসই স্থানীয় পারমাণবিক শক্তি শিল্প এবং সরবরাহ শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে হাজার হাজার উচ্চ-মূল্যবান চাকরি তৈরি করে অর্থনৈতিক বৈচিত্র্যকে সমর্থন করবে। আমাদের সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্টেকহোল্ডার এবং কোরিয়ান অংশীদারদের সহায়তার পাশাপাশি এই অসাধারণ কৃতিত্ব অর্জনে নেতৃত্বে সহায়তা করে যাওয়ার জন্য আমরা কৃতজ্ঞ এবং এই যুগান্তকারী উপলক্ষে এই প্রোগ্রামে যুক্ত সবাইকে অভিনন্দন জানাই। ”

ইউনিটটি গ্রিডের সাথে সংযুক্ত হওয়ার পরে, পারমাণবিক অপারেটর আস্তে আস্তে বিদ্যুতের স্তর বাড়ানোর প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখবে, এটি পাওয়ার অ্যাসেনশন টেস্টিং (পিএটি) নামে পরিচিত। সম্পূর্ণরূপে, ইউনিট 1 এর সিস্টেম নিয়মিতভাবে তদারকি এবং পরীক্ষা করা হয় কারণ ইউনিটটি সমস্ত নিয়ন্ত্রক প্রয়োজনীয়তা এবং সুরক্ষা, মান এবং সুরক্ষার সর্বোচ্চ আন্তর্জাতিক মানের সাথে সামঞ্জস্য রেখে সম্পূর্ণ বিদ্যুত উত্পাদনের দিকে এগিয়ে যায়। কয়েক মাস ধরে এই প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ণ গেলে, প্ল্যান্ট সংযুক্ত আরব আমিরাতের আগত দশক ধরে উন্নতি ও সমৃদ্ধি অর্জনের জন্য পূর্ণ ক্ষমতায় প্রচুর বেসড বিদ্যুৎ সরবরাহ করবে। সংযুক্ত আরব আমিরাত পারমাণবিক শক্তি কার্যক্রমের এই মূল মাইলফলক সম্পর্কে মন্তব্য করে, নাওয়াহের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার আলী আল হামমাদি বলেছেন: ” নাওয়াহ এনার্জি কোম্পানির জন্য ইউনিট 1-এর সূচনা একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক, কারণ আমরা সুরক্ষা এবং মানের সর্বোচ্চ আন্তর্জাতিক মান মেনে প্লান্টটি পরিচালনা এবং বজায় রাখার আমাদের কর্তৃত্ব পূরণ করেছি। আমাদের জনগণের উত্সর্গের পাশাপাশি আমাদের কোরিয়ার অংশীদারদের সাথে আমাদের নিবিড় সহযোগিতা এবং অসংখ্য আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ সংস্থার সাথে সহযোগিতা এই সম্পাদনকে সক্ষম করেছে। এটি বিশ্বব্যাপী পারমাণবিক শিল্পের দক্ষতা অর্জনের মাধ্যমে পুরো কমিশন এবং স্টার্টআপ প্রক্রিয়া জুড়ে সর্বোচ্চ সুরক্ষা, গুণমান এবং অপারেশনাল স্বচ্ছতা মান ধরে রাখার প্রতিশ্রুতিতে জড়িয়ে রয়েছে। আলী আল হামমাদি বলেছেন, “আমি বিশেষত আমাদের মেধাবী সংযুক্ত আরব আমিরাতের জাতীয় প্রকৌশলী এবং পারমাণবিক পেশাদার যারা ইউনিট 1 নির্মাণের ক্ষেত্রে অবদান রেখেছিল, পাশাপাশি সংযুক্ত আরব আমিরাতের জাতীয় সিনিয়র পারমাণবিক চুল্লী অপারেটর এবং পারমাণবিক চুল্লী অপারেটর যারা আমাদের আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের পাশাপাশি প্লান্ট নিরাপদে পরিচালনার জন্য শংসাপত্রপ্রাপ্ত রয়েছে, তাদের জন্য আমি বিশেষভাবে গর্বিত আগামী কয়েক দশক ধরে ইউনিটের নিরাপদ এবং টেকসই কার্যক্রম নিশ্চিত করতে। ”

সংযুক্ত আরব আমিরাত আরব বিশ্বের প্রথম দেশ, এবং বিশ্বব্যাপী 33 তম দেশ, নিরাপদ, স্বচ্ছ এবং নির্ভরযোগ্য বেসলোড বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য একটি পারমাণবিক শক্তি কেন্দ্র তৈরি করেছে। বরাকাহ পারমাণবিক শক্তি কেন্দ্র সংযুক্ত আরব আমিরাতের জ্বালানি সেক্টরের বিদ্যুতায়নের দিকে এগিয়ে যাওয়ার প্রচেষ্টায় উল্লেখযোগ্যভাবে অবদান রাখছে, এবং বিদ্যুৎ উত্পাদনের ডিকার্বোনাইজেশনে। সম্পূর্ণরূপে শুরু হওয়ার পরে, এই প্লান্টটি 5.6 গিগাওয়াট বিদ্যুৎ উত্পাদন করবে এবং প্রতি বছর 21 মিলিয়ন টনের বেশি কার্বন নির্গমন প্রতিরোধ করবে, প্রতি বছর দেশে রাস্তায় 3.2 মিলিয়ন গাড়ি থেকে অপসারণের সমান। 2009 সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতের শান্তিমূলক পারমাণবিক শক্তি কর্মসূচি শুরু হওয়ার পর থেকে, ইএনইসি আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি সংস্থা (আইএইএ), এবং ডাব্লুএএনও সহ আন্তর্জাতিক পারমাণবিক সংস্থার সাথে এফএএনআর এর শক্তিশালী নিয়ন্ত্রণকারী কাঠামোর সাথে মিল রেখে কাজ করেছে। আজ অবধি, বরাকাহ প্লান্ট এবং এর জনগণ এবং প্রক্রিয়া পারমাণবিক গুণমান এবং সুরক্ষার সর্বোচ্চ মান পূরণ করতে পারে তা নিশ্চিত করার জন্য এফএএনআর দ্বারা 255 টিরও বেশি পরিদর্শন করা হয়েছে। এই জাতীয় পর্যালোচনা আইএইএ এবং ডাব্লুএএনও দ্বারা 40 টিরও বেশি মূল্যায়ন এবং পিয়ার পর্যালোচনা দ্বারা সমর্থিত হয়েছে। ইএনইসি সম্প্রতি নাওয়াহ পরিচালিত অপারেশনাল তত্পরতা প্রস্তুতির সাথে ইউনিট 2 এর নির্মাণ সমাপ্তির ঘোষণা করেছে। বরাকাহ পারমাণবিক শক্তি কেন্দ্রের 3 ও 4 ইউনিট নির্মাণের কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে, চারটি ইউনিটের সামগ্রিক নির্মাণ কাজ এখন 94% এ দাঁড়িয়েছে। অনুবাদ: এম. বর।

 

مؤسسة الإمارات للطاقة النووية تعلن بداية التشغيل الآمن لأولى محطات براكة للطاقة النووية السلمية

– إنجاز تاريخي تحقق وفق المتطلبات الرقابية وأعلى معايير السلامة والجودة العالمية.

– مؤسسة الإمارات للطاقة النووية تعلن بداية التشغيل الآمن لأولى محطات براكة للطاقة النووية السلمية.

………………………………

أبوظبي في الأول من أغسطس / وام / أعلنت مؤسسة الإمارات للطاقة النووية اليوم عن تحقيق إنجاز تاريخي، تمثل في نجاح شركة نواة للطاقة التابعة للمؤسسة والمسؤولة عن تشغيل وصيانة محطات براكة للطاقة النووية السلمية، في إتمام عملية بداية تشغيل مفاعل المحطة الأولى.

ويعد هذا الإنجاز الأهم لغاية اللحظة في مسيرة البرنامج النووي السلمي الإماراتي ومحطات براكة للطاقة النووية في منطقة الظفرة بإمارة أبوظبي.

ومنذ تسلمها رخصة تشغيل المحطة الأولى في براكة من الهيئة الاتحادية للرقابة النووية في فبراير 2020، وإتمام تحميل حزم الوقود النووي في مفاعل المحطة في مارس 2020، بدأت شركة نواة للطاقة التابعة للائتلاف المشترك بين مؤسسة الإمارات للطاقة النووية والشركة الكورية للطاقة الكهربائية /كيبكو/ في تنفيذ برنامج اختبارات شامل وبشكل آمن وصولاً إلى نجاحها في إتمام عملية بداية تشغيل مفاعل المحطة الأولى.

وتتمثل عملية بداية تشغيل مفاعل المحطة الأولى، في إنتاج الحرارة داخل المفاعل للمرة الأولى بشكل آمن من أجل توليد البخار الذي يعمل بدوره على دوران التوربين لإنتاج الكهرباء، حيث ركز خبراء فريق تشغيل المفاعلات المعتمد في “نواة” على التحكم الآمن بهذه العملية وكذلك التحكم بمستوى الطاقة الناتجة عن المفاعل ..وبعد عدة اختبارات ستكون المحطة الأولى جاهزة للربط مع شبكة كهرباء دولة الإمارات العربية المتحدة وإنتاج أول ميغاواط من الكهرباء الصديقة للبيئة للمنازل والقطاعات التجارية في الدولة.

وتمت كافة الاختبارات هذه تحت إشراف الهيئة الاتحادية للرقابة النووية، الجهة الرقابية المستقلة للأنشطة النووية في الدولة، وبعد إتمام مراجعة ما قبل بداية التشغيل للمحطة الأولى من قبل الرابطة العالمية للمشغلين النوويين في يناير 2020، وقبيل الحصول على رخصة تشغيل، والتي أكدت أن المحطة ملتزمة بأفضل معايير الأداء في قطاع الطاقة النووية.

وقال سعادة محمد إبراهيم الحمادي، الرئيس التنفيذي لمؤسسة الإمارات للطاقة النووية: “بلا شك تعد هذه لحظة تاريخية لدولة الإمارات العربية المتحدة، والتي أتت تتويجاً لأكثر من عقد من الرؤية الطموحة والتخطيط الاستراتيجي والإدارة المحكمة للبرنامج النووي السلمي الإماراتي ..وبالرغم من التحديات الحالية التي تواجه العالم، أظهرت فرق العمل لدينا قدراً كبيراً ومميزاً من المرونة والالتزام بإنجاز المحطة الأولى بأمان تام، حيث نقترب خطوة أخرى من تحقيق هدفنا الخاص بتوفير ربع احتياجات الدولة من الكهرباء، وتعزيز مسيرة النمو والتطور لمستقبل الدولة باستخدام طاقة كهربائية آمنة وموثوقة وخالية من الانبعاثات”.

وأضاف: “في إطار رؤية القيادة الرشيدة، أصبحت محطات براكة للطاقة النووية محركاً للنمو في دولة الإمارات، حيث ستنتج المحطات الأربع فور تشغيلها بالكامل 25% من الكهرباء الخالية من الانبعاثات الكربونية في الدولة، إلى جانب دعم التنوع الاقتصادي من خلال توفير آلاف الوظائف المجزية عبر تطوير قطاع مستدام للطاقة النووية النووية وسلسلة إمداد محلية”.

وتابع الحمادي: “نثمن دعم القيادة الرشيدة المستمر والذي مكننا من تحقيق هذا الإنجاز الكبير، بالإضافة إلى دعم شركائنا في الدولة وشركائنا الكوريين، كما نتوجه بالتهنئة لكل من ساهم في هذا الإنجاز وفي البرنامج النووي السلمي الإماراتي بشكل عام”.

وفور ربط المحطة الأولى بشبكة كهرباء الدولة، سيواصل المشغلون رفع مستويات طاقة المفاعل بشكل تدريجي من خلال عملية تعرف باسم “اختبار الطاقة التصاعدي” والتي يتم خلالها مراقبة أنظمة المحطة وإجراء الاختبارات عليها للوصول إلى التشغيل الكامل وفق المتطلبات الرقابية ووفق أعلى معايير السلامة والجودة والأمن في العالم ..وعند اكتمال هذه العملية خلال عدة أشهر ستنتج المحطة كميات وفيرة من الكهرباء وبطاقتها القصوى، لدعم النمو الاقتصادي والازدهار الاجتماعي في الدولة لعقود قادمة.

ومن جهته، قال المهندس علي الحمادي الرئيس التنفيذي لشركة نواة للطاقة: “بداية تشغيل المحطة الأولى إنجاز كبير لشركة نواة للطاقة التي تفي بالتزاماتها الخاصة بتشغيل وصيانة المحطة وفق أعلى المعايير العالمية الخاصة بالسلامة والجودة ..نفتخر اليوم بتفاني فرق العمل لدينا والتعاون الوثيق مع شركائنا الكوريين والعديد من المنظمات الدولية التي تتمتع بالخبرات الكبيرة في هذا القطاع وهو ما مكننا من تحقيق هذا الإنجاز، وهو ما يعكس أيضاً التزامنا بتطبيق أعلى معايير السلامة والجودة والشفافية في كافة مراحل إنجاز المحطة وصولاً لبداية تشغيلها مع الاستفادة من الخبرات الدولية في قطاع الطاقة النووية السلمية”.

وأضاف: “نفخر بشكل خاص بكفاءاتنا من المهندسين والفنيين النوويين الإماراتيين الذين ساهموا في إتمام العمليات الإنشائية للمحطة الأولى، إلى جانب مديري تشغيل ومشغلي المفاعلات الإماراتيين الذين تم اعتمادهم لتشغيل المحطة بأمان، وكذلك الخبرات العالمية في فرق العمل، والذين يعملون جميعاً لضمان عمليات تشغيل آمنة ومستدامة لعقود قادمة”.

وبهذا الإنجاز أصبحت دولة الإمارات العربية المتحدة الأولى في العالم العربي والثالثة والثلاثين على مستوى العالم، التي تنجح في تطوير محطات للطاقة النووية لانتاج الكهرباء على نحو آمن وموثوق وصديق للبيئة، حيث تساهم محطات براكة بشكل كبير في جهود الدولة الخاصة بتوفير الطاقة الكهربائية بالتزامن مع خفض الانبعاثات الكربونية الناجمة عن إنتاج الكهرباء ..وعند تشغيلها بشكل كامل، ستنتج محطات براكة الأربع 5.6 غيغاواط من الكهرباء وستحد من 21 مليون طن من الانبعاثات الكربونية سنوياً، وهو ما يعادل إزالة 3.2 مليون سيارة من طرق الدولة كل عام.

ومنذ انطلاق البرنامج النووي السلمي الإماراتي في العام 2009، تعاونت مؤسسة الإمارات للطاقة النووية بشكل وثيق مع المؤسسات والجهات الدولية المتخصصة بقطاع الطاقة النووية، مثل الوكالة الدولية للطاقة الذرية، والرابطة العالمية للمشغلين النوويين، وفي إطار متطلبات الهيئة الاتحادية للرقابة النووية، حيث أجرت الهيئة أكثر من 255 عملية تفتيش لضمان التزام محطات براكة والموظفين والعمليات بأعلى معايير السلامة والجودة، بينما أجرت كل من الوكالة الدولية للطاقة الذرية والرابطة العالمية للمشغلين النوويين أكثر من 40 عملية مراجعة وتقييم.

وكانت مؤسسة الإمارات للطاقة النووية أعلنت حديثاً عن اكتمال الأعمال الإنشائية في المحطة الثانية في براكة وتسليم المحطة لشركة نواة للطاقة تمهيداً لبدء مرحلة الاستعدادات التشغيلية، بينما وصلت الأعمال الإنشائية في المحطتين الثالثة والرابعة إلى مراحلها النهائية، فيما وصلت النسبة الكلية للإنجاز في المحطات الأربع إلى أكثر من 94%.

Safe start-up of Unit 1 of Barakah Nuclear Energy Plant successfully achieved

– Start-up is major step in process for upcoming generation of emissions-free electricity –

Process undertaken in line with regulatory requirements and highest international standards for nuclear quality and safety

 

ABU DHABI, 1st August 2020 (WAM) – The Emirates Nuclear Energy Corporation, ENEC, today announced that its operating and maintenance subsidiary, Nawah Energy Company, Nawah, has successfully started up Unit 1 of the Barakah Nuclear Energy Plant, located in the Al Dhafrah Region of Abu Dhabi, United Arab Emirates, UAE.

This step is the most historic milestone to date in the delivery of the UAE Peaceful Nuclear Energy Programme, as part of the process towards generating clean electricity for the Nation for at least the next 60 years.

Since receipt of the Operating License from the Federal Authority for Nuclear Regulations, FANR, in February 2020, and the completion of fuel assembly loading in March 2020, Nawah, the Joint Venture nuclear operations and maintenance subsidiary of ENEC and the Korea Electric Power Corporation, KEPCO, has been safely progressing through a comprehensive testing programme, prior to successfully completing the start-up of the first nuclear energy reactor of the Barakah plant.

The start-up of Unit 1 marks the first time that the reactor safely produces heat, which is used to create steam, turning a turbine to generate electricity. Nawah’s qualified and licensed team of nuclear operators focus on safely controlling the process and controlling the power output of the reactor. After several weeks and conducting numerous safety tests, Unit 1 will be ready to connect to the UAE’s electricity grid, delivering the first megawatts of clean electricity to the homes and businesses of the Nation.

Testing has been undertaken with the continued oversight of the UAE’s independent nuclear regulator, FANR, and follows the World Association of Nuclear Operator’s, WANO, completion of a Pre Start-up Review , PSUR, in January 2020, prior to receipt of the Operating License, which ensures Unit 1 is aligned with international best practice in the nuclear energy industry.

Mohamed Ibrahim Al Hammadi, Chief Executive Officer of ENEC, said: “Today is a truly historic moment for the UAE. It is the culmination of more than a decade of vision, strategic planning and robust program management. Despite the recent global challenges, our team has demonstrated outstanding resilience and commitment to the safe delivery of Unit 1. We are now another step closer to achieving our goal of supplying up to a quarter of our Nation’s electricity needs and powering its future growth with safe, reliable, and emissions-free electricity.

“Through the realization of the vision of our Leadership, the Barakah Nuclear Energy Plant has become an engine of growth for the Nation. It will deliver 25 percent of the UAE’s electricity with zero carbon emissions while also supporting economic diversification by creating thousands of high-value jobs through the establishment of a sustainable local nuclear energy industry and supply chain.

We are grateful to the Leadership for their continuous support in making this remarkable achievement happen, along with the support of our UAE stakeholders and Korean partners, and congratulate everyone involved in the Programme on this landmark occasion.”

Once the unit is connected to the grid, the nuclear operators will continue with a process of gradually raising the power levels, known as Power Ascension Testing, PAT. Throughout, the systems of Unit 1 are continuously monitored and tested as the unit proceeds towards full electricity production in line with all regulatory requirements and the highest international standards of safety, quality and security. Once the process is completed over the course of a number of months, the plant will deliver abundant baseload electricity at full capacity to power the growth and prosperity of the UAE for decades to come.

Commenting on this key milestone in UAE nuclear energy operations, Eng. Ali Al Hammadi, Chief Executive Officer of Nawah, said: “The start-up of Unit 1 is a significant milestone for Nawah Energy Company as we fulfill our mandate to operate and maintain the plant in accordance with the highest international standards of safety and quality. The dedication of our people as well as our close collaboration with our Korean partners and cooperation with numerous international expert organisations has enabled this accomplishment. This reflects our commitment to upholding the highest safety, quality and operational transparency standards throughout the entire commissioning and startup process by leveraging the expertise of the global nuclear industry.

“I am especially proud of our talented UAE National engineers and nuclear professionals who contributed to the construction of Unit 1, as well as the UAE National Senior Reactor Operators and Reactor Operators who have been certified to safely operate the plant, alongside our international experts, to ensure the safe and sustainable operations of the unit for decades to come,” concluded Eng. Ali Al Hammadi.

The UAE is the first country in the Arab World, and the 33rd nation globally, to develop a nuclear energy plant to generate safe, clean, and reliable baseload electricity.

The Barakah plant is significantly contributing to the UAE’s efforts to move towards the electrification of its energy sector, and the decarbonisation of electricity production.

When fully operational, the plant will produce 5.6 gigawatts of electricity while preventing the release of more than 21 million tons of carbon emissions every year, equivalent to the removal of 3.2 million cars from the Nation’s roads annually.

Since the UAE Peaceful Nuclear Energy Programme commenced in 2009, ENEC has worked closely with international nuclear bodies, including the International Atomic Energy Agency, IAEA, and WANO, in line with the robust regulatory framework of FANR. To date, more than 255 inspections have been undertaken by FANR to ensure the Barakah plant and its people and processes meet the highest standards of nuclear quality and safety. These national reviews have been supported by more than 40 assessments and peer reviews by the IAEA and WANO.

ENEC recently announced the construction completion of Unit 2, with operational readiness preparations now underway by Nawah. Construction of Units 3 and 4 of the Barakah Nuclear Energy Plant is in the final stages, with the overall construction completion of the four units now standing at 94 percent.

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

শিরোনাম:
  ❖   মসজিদে গ্যাস বিস্ফোরণে নিহত ও আহতদের ক্ষতিপূরণ ও দোষীদের কঠোর শাস্তি দিতে হবে- প্রিন্সিপাল সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ মাদানী   ❖   মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় আল্লামা বাবুনগরীর শোক: ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত দাবী   ❖   কে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ?   ❖   ইসরায়েলকে বয়কট করার আইন বাতিল আমিরাতের   ❖   শারজাহ বিএনপি’র উদ্যোগে ৪২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন   ❖   মার্কিন-ইসরায়েলি প্রতিনিধি সংযুক্ত আরব আমিরাতে পৌঁছেছেন   ❖   মোহাম্মদ বিন রাশিদ জ্বালানি, অবকাঠামো, আবাসন ও পরিবহন খাতে পরিচালনার রোডম্যাপ সম্পর্কে জানিয়েছেন   ❖   সংযুক্ত আরব আমিরাতের সহায়তা-জাহাজ ইয়েমেনের আল মুকাল্লা বন্দরে পৌঁছেছে   ❖   তিস্তায় চীনা বিনিয়োগ নিয়ে চাপের মুখে ভারত?   ❖   শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ানোর কথা ভাবছে সরকার