All for Joomla The Word of Web Design
বাংলাদেশ

হাটহাজারির ছাত্র আন্দোলন সফলতা, প্রশ্ন ও বিভ্রান্তি নিয়ে কিছু কথা

এহসানুল হক
কওমি মাদরাসার ইতিহাসে এক অভাবনীয় ছাত্র আন্দোলন হয়ে গেলে হাটহাজারিতে। কওমি অঙ্গনে ছাত্র আন্দোলন অপ্রত্যাশিত হলেও সেটা ছিলো পুঞ্জিভূত ক্ষোভের অনিবার্য বিস্ফোরণ। মাত্র দুইদিনের কর্মসূচিতে জগদ্দল পাথরের মত বসে থাকা দালালদের দম্ভ ও গবের্র ভীত তছনছ হয়ে গেলো। ছাত্র আন্দোলন সফল হয়েছে এতে কোনো সন্দেহ নাই। তবে কয়েকটি বিষয় নিয়ে আলাপ করা জরুরি মনে করছি।
১. আন্দোলনের এই সফলতাকে চূড়ান্ত বিজয় মনে করে অতি উৎসাহি হওয়ার সুযোগ নাই। আল্লামা আহমদ শফিকে কেন্দ্র করে যে বলয় গড়ে উঠেছিলো, সেখান থেকে মাত্র একজনকে অপসারণ করা হয়েছে, বাকি সবাই কিন্তু বহাল তবিয়তে এখানো আছে। তারা তাদের কাজ ঠিকই করে যাচ্ছে। আর যারা এই দালাল শ্রেণী সৃষ্টি করেছে, তারা তো ছায়া হয়ে আছেই। কাজেই তৃপ্তির ঢেকুড় তোলার সুযোগ নাই।
২. আল্লামা আহমদ শফিকে অপসারণ করা হয়নি। তিনি এখনো হাটহাজারির সর্বোচ্চ সম্মানজনক পদ সদরে মুহতামিম হিসেবে আছেন। তবে তার অসুস্থতার কারণে তার যে ক্ষমতাকে অন্যরা ব্যবহার করতো সেই ক্ষমতাটা এখন শুরাকে দেয়া হয়েছে। কাজেই আহমদ শফি সাহেব এর বিদায়ের কথা বলে মায়া কান্নার কি আছে। তিনি ভার মুক্ত হয়ে নিরাপদ সম্মানজনক স্থানে আছেন। এবং এই পদেই সম্মানের সাথে থাকবেন।
৩. হাটহাজারির এই সফল আন্দোলনের ক্রেডিট নিয়ে যে, কথা উঠেছে এটা সম্পূর্ণ অবান্তর। এখানে অন্য কারো কোনো অবদান নেই। এই আন্দোলনের ক্রেডিট সম্পূর্ণ হাটহাজারির ছাত্রদের। এখানে অন্য কেউ ক্রেডিট নেয়ার দাবি করেছে এমন কিছুও নজরে পড়েনি। অযথাই ক্রেডিট নিয়ে টানাটানির কথা বলার অর্থ হলো অন্যকে হেয় করা। যার কোন প্রয়োজন আছে বলে মনে করি না।
৪. ঢাকার উলামায়ে কেরামের ভিডিও বার্তা নিয়ে বেশ কথা হচ্ছে। সন্ধ্যা সাড়ে ৮ টায় তাদের মিটিং শুরু হয়েছিলো। আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিতে কিছুটা সময় লেগেছে। কিন্তু এর আগেই হাটহাজারির ফায়সালা হয়ে গেছে। কালকে রাতে ফায়সালা না হলেও এই লাইভ ঠিকই হতো, এবং তখন বুঝা যেতো এই লাইভের গুরুত্ব কতটুকু। দালালদের বিরুদ্ধে ঢাকার যেসব উলামায়ে কেরাম ভুমিকা রাখছেন তাদেরকেও যদি প্রশ্নবিদ্ধ করা হয় তাহলে বাকি থাকে কি?
৫. হাটহাজারি আন্দোলনের ইন্ধনদাতা হিসেবে অনেকেই মাওলানা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছে। দালালদের নামে বেনামে যতগুলো আইডি আছে সবগুলো আইডি থেকে এই আন্দোলনের জন্য সবার আগে আল্লামা বাবুনগরী ও মাওলানা মামুনুল হকের বিষাদগার করা হচ্ছে, এরপরও কি মামুন সাহেবের দায়িত্ব ছিলো তাদের অভিযোগগুলোকে সত্য প্রমাণের জন্য ফেসবুকে বারবার স্ট্যাটাস দেয়া?
৬. ডাকসু ভিপি নূরের কর্মসূচি নিয়ে অনেকের আপত্তি দেখলাম। ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখলাম। ঢাকায় সমাবেশ করার দায়িত্ব ছিলো কওমি অঙ্গনের ছাত্র সংগঠনগুলোর, আমি মনে করি ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও নানান কারণে তারা করতে পারেনি। আমরা নিজেরা করবো না, আর কাউকে করতেও দিবো না এটা কেমন কথা? আর বিপ্লব কি একা একা হয়? কোনো বিপ্লবের পক্ষ সবশ্রেণীর সমর্থন থাকলেই সেটা সফলতা লাভ করে।
৭. এই আন্দোলনের সাথে যারা ছিলো, ছাত্র জনতা ও আলেম উলামা। আমি তাদেরকেই কওমি অঙ্গনের মূল শক্তি মনে করি। প্রকাশ্যে বা অপ্রকাশ্যে যারা যেভাবে সহযোগীতা করেছে তারাই ঠিক করবে কওমি অঙ্গনের ভবিষৎ। যারা এই আন্দোলনকে শুরু থেকেও প্রশ্ন বিদ্ধ করার চেষ্টা করেছে, তারাই সুবিধাবাদি। এরা কওমি অঙ্গনের ঐক্য বিরোধী। সব সময়ই এরা স্রোতের বিরুদ্ধে চলে স্রোতকে প্রশ্ন বিদ্ধ করেছে। এদের ভিতরে থেকেও কিছু মানুষ আন্দোলনের সাথে ছিলো, তাদের সাধুবাদ জানাই।

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password

শিরোনাম:
  ❖   লালমনিরহাটের গণপিটুনি ও পুড়িয়ে হত্যাকান্ডের সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের দ্রুত শাস্তির আওতায় আনতে হবে: ইশা ছাত্র আন্দোলন, ঢাবি শাখা   ❖   কওমী শিক্ষার্থীদের জাতির উন্নয়নের অগ্রদূত হিসেবে শপথ গ্রহণ করতে হবে: মুফতি শেখ মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম   ❖   ‘হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর শিক্ষা সমগ্র মানব জাতির জন্য অনুসরণীয়’- রাষ্ট্রপতি   ❖   ফরাসিদের সাজা দেয়ার অধিকার মুসলমানদের আছে: মাহাথির   ❖   ফ্রান্স ইস্যুতে নিরপেক্ষ থাকবে বাংলাদেশ   ❖   ইসলাম অবমাননাকর কার্টুন প্রকাশে নিন্দা রাশিয়ার   ❖   অফিসে ধর্মীয় পোশাক, নোটিশ প্রত্যাহার করে দুঃখ প্রকাশ   ❖   মাসে ৭০ হাজার টাকা ভাড়ায় অফিস নিল “গন অধিকার পরিষদ”   ❖   সিনামা-নাটকে বিয়ের দৃশ্যে ‘কবুল’ বলা যাবে না!   ❖   নারীদের হিজাব, পুরুষের টাকনুর ওপর পোশাক পরে অফিসে আসার নির্দেশ